ফুলবাড়ীতে সবুজে স্বপ্ন বুনছেন বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকরা ফুলবাড়ীতে সবুজে স্বপ্ন বুনছেন বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকরা – এইবেলা
  1. admin@eibela.net : admin :
সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ১২:৪৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
কুলাউড়ার জয়চন্ডীতে পঞ্চায়েত প্রধানের উপর হামলা: ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী প্রধানমন্ত্রী চান না খাদ্যাভাবে কোনে মানুষ মারা যাক : প্রতিমন্ত্রী শফিক চৌধুরী এমপি বড়লেখায় এলজিইডি’র নারী কর্মীদের সঞ্চয়ের সোয়া কোটি টাকার চেক বিতরণ বড়লেখার বোবারথলের রাস্তা ও কালভার্ট বিধ্বস্ত-চরম দুর্ভোগ কুলাউড়ার পানিতে ডুবে দুই শিশুর মৃত্যু  কুলাউড়ায় পথে পথে গরুর হাট : বাজারবিমুখ ক্রেতারা কুলাউড়ার বরমচালে শিশুর মাছ ধরাকে কেন্দ্র করে হামলা ও ঘরবাড়ি ভাঙচুরের অভিযোগ বড়লেখা থানা পুলিশের অভিযানে ৫ চোরাই গরু উদ্ধার, গ্রেফতর ২ কমলগঞ্জে মাগুরছড়া ট্র্যাজেডি দিবস পালিত ১৪ হাজার কোটি টাকার ক্ষতিপূরণ দাবি ১৪ জুন কমলগঞ্জের মাগুরছড়া বিস্ফোরণের ২৭ বছর

ফুলবাড়ীতে সবুজে স্বপ্ন বুনছেন বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকরা

  • শুক্রবার, ৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০
ফুলবাড়ী :: বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকের স্বপ্ন বুনা সবুজে ভরা মাঠ। ছবি :: এইবেলা

রতি কান্ত রায়, কুড়িগ্রাম :: বন্যার কড়াল গ্রাস তবুও কৃষকের অক্লান্ত পরিশ্রমে দিগন্তজুড়ে এখন সবুজের সমারোহ। কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে টানা বর্ষণ আর উজান থেকে নেমে আসা পানিতে প্লাবিত হয়েছিল বিস্তৃর্ণ এলাকা। তবুও সব প্রতিকূলতাকে মোকাবিলা করে আমন রোপনে ব্যস্ত সময় পার করছেন ধানচাষীরা।

বন্যার কারণে উপজেলার কিছু এলাকায় আমন চারা রোপনে বিলম্ব হলেও বর্তমানে তা প্রায় শেষ পর্যায়ে।
সরেজমিনে গিয়ে উপজেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে- প্রায় সব জমিতে কৃষকরা আমন চারা রোপন শেষ করেছেন। কৃষাণ-কৃষাণীর নিবিড় মমতায় চারা গাছগুলো দিনে দিনে সবুজ সতেজতায় বেড়ে উঠছে।

সাড়া ফুলবাড়ীর দিগন্তজুড়েই এখন সবুজের সমারোহ।চারা রোপনের পর ফসলের পরিচর্যায় এ অঞ্চলের কৃষাণ-কৃষাণীর পদচারনায় মুখরিত আমনের ক্ষেত।

এবারের বন্যায় কিছু আমন বীজতলা তলিয়ে গেলেও দ্রুত পানি নেমে যাওয়ায় চারার কোন ক্ষতি হয়নি।ফলে সঠিক সময়েই আমনের চারা রোপন কাজ শেষ করতে পেরে স্বস্তিতে কৃষকেরা।

বন্যা পরিস্থিতিতে চলতি আমন মৌসুমে চাষাবাদের বিষয়ে জানতে কথা হয় উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মাহবুবুর রশীদের সাথে, এসময় তিনি জানান – এবারে উপজেলায় ১১ হাজার ৩৪৫ হেক্টর জমিতে আমন চারা রোপনের লক্ষ্যমাত্রা ছিল। ইতিমধ্যেই বন্যাকবলিত এলাকাসহ ১০ হাজার ২০০ হেক্টর জমিতে চারা রোপন সম্পন্ন হয়েছে। উপজেলার ভাঙ্গামোড় ও বড়ভিটা ইউনিয়নের নিচু এলাকায় কিছু জমিতে এখনো চারা রোপন কাজ চলছে। চলতি মৌসুমে দুইটি বন্যার পরেও উপজেলায় আমন চারার কোন সংকট নেই তাই আমন চারা রোপনে শতভাগ লক্ষ্য অর্জিত হবে। তাছাড়া সঠিক পরিচর্যা এবং আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে অধিক ফলনের সম্ভাবনার কথাও জানান তিনি।

আরকেআর/জেএইচজে

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২২ - ২০২৪
Theme Customized By BreakingNews