হাকালুকি হাওরে হুহু করে বাড়ছে পানি : কুলাউড়ার ২২টি আশ্রয়কেন্দ্রে ভীড় বাড়ছে বানভাসি মানুষের হাকালুকি হাওরে হুহু করে বাড়ছে পানি : কুলাউড়ার ২২টি আশ্রয়কেন্দ্রে ভীড় বাড়ছে বানভাসি মানুষের – এইবেলা
  1. admin@eibela.net : admin :
শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ০৩:৫৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
কমলগঞ্জে পূজা উদযাপন পরিষদের বৃক্ষরোপন কুড়িগ্রামে শিশুদের প্রতি সহিংসতা বন্ধে স্থানীয় স্টেক হোল্ডারদের সাথে সংলাপ সুজানগর ইউপি : বন্যার্তদের ২০ লাখ টাকার খাদ্যসামগ্রী দিচ্ছেন প্রবাসীরা ইউপি চেয়ারম্যান উপ-নির্বাচন-বড়লেখায় প্রতীক পেয়েই প্রচারণায় প্রার্থীরা কুলাউড়ায় বন্যা কবলিত এলাকায় শিশু খাবার পানি বিশুদ্ধকরণ টেবলেট ও খাবার স্যালাইন বিতরণ কুলাউড়ায় আশ্রয়ন প্রকল্পে ঘর বরাদ্দের নামে অসহায় মহিলার ভিক্ষার টাকা আত্মসাত! ব্যারিস্টার সুমনকে হত্যার হুমকি দাতা কুলাউড়ার সোহাগ গ্রেফতার! ওসমানীনগরে শতাধিক শিক্ষার্থী পেল স্কুল ড্রেস বার্সেলোনায় সাংবাদিক নেতৃবৃন্দের সাথে বাংলার মেলা আয়োজক সংঠনের মতবিনিময় কুলাউড়া পৌরসভার ৬৯ কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা

হাকালুকি হাওরে হুহু করে বাড়ছে পানি : কুলাউড়ার ২২টি আশ্রয়কেন্দ্রে ভীড় বাড়ছে বানভাসি মানুষের

  • সোমবার, ২০ জুন, ২০২২

এইবেলা, কুলাউড়া ::  এশিয়ার বৃহত্তম হাওর হাকালুকিতে হুৃহুৃ করে বাড়ছে পানি। সেই সাথে হাওর তীরবর্তী কুলাউড়া উপজেলায় ২২টি বন্যা অভয়াশ্রমে বানভাসি মানুৃষের ভীড় বাড়ছে। এসব আশ্রয় কেন্দ্র এবং দুর্গত মানুষের মাঝে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ১২ শত ৪০ প্যাকেট শুকনো খাবার বিতরণ করা হয়েছে। যা চাহিদার তুলনায় অপ্রতুৃল। গত ৩দিন থেকে এসব আশ্রয় কেন্দ্রে মানুষ অভুক্ত অবস্থায় দিনযাপন করছেন।

কুলাউড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার এটিএম ফরহাদ চৌধুরী জানান, কুলাউড়া উপজেলায় মোট ৩৩টি বন্যা আশ্রয় কেন্দ্র প্রস্তুত করা হয়েছে। এরমধ্যে ২২টি আশ্রয় কেন্দ্রে ইতোমধ্যে ৭ শতাধিক পরিবার আশ্রয় নিয়েছে। বৃষ্টিপাত অব্যাহত থাকায় হাকালুকি হাওরে পানি বৃদ্ধি অব্যাহত আছে। ফলে রোববারের তুলনায় ২০ জুৃন সোমবার আশ্রয় কেন্দ্রে বানভাসি মানুষের ভীড় বাড়ছে। সোমবার ২০ জুন ইউনিয়ন পর্যায়ে ৩৫ মেট্রিক চাল বরাদ্ধ দেয়া হয়েছে।

কুলাউড়া উপজেলা শিক্ষা অফিসসূত্রে জানা গেছে, কেবলমাত্র কুলাউড়া উপজেলায় অর্ধশতাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে তবে বন্যা কবলিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে।

সরেজমিন কুলাউড়া উপজেলার বরমচাল ও ভুকশিমইল ইউনিয়নে গেলে স্থানীয় লোকজন জানান, বন্যা কবলিত বিভিন্ন গ্রামে বেশিরভাগ মানুষ নিজ নিজ গৃহে অবস্থান করছে। মানুষ কষ্ট শিকার করে হলেও বাড়িঘর ও মালামালের মায়ায় যাচ্ছে না আশ্রয়কেন্দ্রে। কুলাউড়া পৌরসভার প্রায় সবক’টি ওয়ার্ডে প্রচুর বাড়িঘরে মানুষ বন্যার পানির সাথে বসবাস করছেন।

কুলাউড়া উপজেলা ছাড়া হাকালুকি হাওর তীরের জুৃড়ী উপজেলার বেলাগাঁও ও ভাটিশাহাপুর এলাকার বেশির ভাগ মানুষ কুলাউড়া শাহবাজপুর রেললাইনে আশ্রয় নিয়েছেন। এসব এলাকার মানুষ জানান, এবারের বন্যা বিগত সকল বছরের রেকর্ড ভঙ্গ করেছে। যারা এলাকায় এখন অবস্থান করছেন, তারা সবচেয়ে বেশি বিশুদ্ধ পানীয় জলের শঙ্কটের পাশাপাশি স্যানিটেশন সমস্যায় পড়েছেন। প্রশাসনের পক্ষ থেকে দুর্গত বেশিরভাগ এলাকায় গত ৩দিনেও কোন ত্রাণ পৌঁছায় নি।#

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২২ - ২০২৪
Theme Customized By BreakingNews