1. admin@eibela.net : admin :
বুধবার, ০৮ জুলাই ২০২০, ০৫:৩৪ পূর্বাহ্ন

 স্ত্রীর পরকীয়া মেনে নিতে না পেরে কুলাউড়ায় প্রবাসীর আত্মহত্যা !

  • মঙ্গলবার, ১৬ জুন, ২০২০
  • ১১৯৩ বার পড়া হয়েছে

এইবেলা, কুলাউড়া  ::

স্ত্রীর সাথে নিজের ছোট ভাইয়ের পরকীয়ার গুঞ্জন চাউর হওয়ার পর থেকেই মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েন প্রবাসী নিলয় মল্লিক নিপু (৩২)। লোকলজ্জার ভয়েও বিচারপ্রার্থী হয়েছিলেন অনেকের কাছে। সুবিচার না পেয়ে আপনজনদের কাছ থেকে পাওয়া অসহ্য অপমান, যন্ত্রণা, মানসিক নির্যাতনে অবশেষে আত্মহননেন পথ বেছে নিলেন প্রবাসী নিলয়। বিষয়টি ধামাচাপার অপচেষ্টা চালাচ্ছে একটি মহল।

প্রকাশ, নিহত নিলয় মল্লিক মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলার রাউৎগাঁও ইউনিয়নের পালগ্রামের বাসিন্দা লনি মল্লিকের বড় ছেলে। তিনি গত ৮ জুন সোমবার দুপুরে প্রতিবেশী কটা মিয়ার বাড়ির পেছনের একটি পরিত্যক্ত জায়গায় বিষপান করে আত্মহত্যা করেন। তাঁর বিষপানে আত্মহত্যা নিয়ে স্থানীয় এলাকায় বেশ ধুম্রজাল তৈরি হয়েছে।

ঘটনার দিন স্থানীয় এলাকার বাসিন্দা ফজল ড্রাইভার গাড়ি নিয়ে ওই এলাকার সড়ক দিয়ে যাওয়ার সময় দেখতে পান প্রবাসী নিলয় বিষপান করে ছটফট করছেন। বিষয়টি তিনি সাথে সাথে তাদের পরিবারের সদস্যদের অবগত করেন। পরে স্থানীয়দের সহযোগিতায় তাকে কুলাউড়া হাসপাতালে নিয়ে এলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

সরেজমিন ঘটনা সর্ম্পকে জানতে এলাকায় গেলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অন্তঃত ২০-২৫ জন লোক জানান, নিহত প্রবাসী নিলয় খুবই শান্তশিষ্ট ও ভদ্র ছেলে ছিল। সে খুবই পরিশ্রমী ছিল। এলাকার সবার সাথে তার খুবই ভালো সম্পর্ক ছিলো। পরিবারের লোকজন থাকে পাগল বলে অ্যাখায়িত করেন। কিন্তুু তাদের পরিবার ব্যতিত এলাকার কোন লোকই নিলয়কে পাগল বলবে না। সে প্রবাসে গিয়ে তাঁর পরিবারের জন্য অনেক কিছু করেছে। বিয়ে করে প্রবাসে যাওয়ার পর তাঁর স্ত্রী ঝুমকি রাণীর সাথে ছোটভাই রঞ্জিত মল্লিকের অবৈধ সম্পর্ক গড়ে উঠে বলে গুঞ্জন রয়েছে। স্ত্রীর সাথে নিজের ছোটভাইয়ের সম্পর্কের বিষয় জানতে পেরে দেশে এসে  বিপাকে পড়েন। এ বিষয়ে বেশ কয়েকটি সালিশ বৈঠক হয়। বৈঠকে স্থানীয় এলাকার মেম্বার আনু মিয়া, শিক্ষক উস্তার মিয়া, অরুনসহ অনেকেই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। তখন প্রবাসী নিলয় তাঁর সাথে পরিবারের সদস্য কর্তৃক মানসিক নির্যাতন, পারিবারিক কলহ, তাঁর স্ত্রী ঝুমকি রানীর সাথে মনমালিন্য এসব বিষয় নিয়ে সে বিচারপ্রার্থী হয়। কিন্তুু সালিশি বৈঠক কিংবা পারিবারিকভাবে কোন ন্যায় বিচার পাননি। যার কারণে পরিবারের সদস্যদের ওপর অভিমান করে বিষপানে আত্মহত্যা করে বলে জানা গেছে।

স্থানীয় এলাকার বাসিন্দা ও নিহত নিলয়ের পরিবারসূত্রে জানা যায়, নিলয় দীর্ঘ ১২ বছর সংযুক্ত আরব আমিরাতে ছিলো। সেখানে থেকে তাঁর উপার্জিত অর্থ দিয়ে বাড়িতে একটি পাঁকার ঘরও নির্মাণ করা হয়। ২০১৫ সালের ২৭ নভেম্বর দেশে এসে সে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয় পাশ্ববর্তী কমলগঞ্জ উপজেলার ঝুমকি রাণী মল্লিকের সাথে। বিয়ের পর খুবই ভালো চলছিলো তাদের সংসার। কিন্তুু বিয়ের পর সে আবারও প্রবাসে চলে যাওয়ার পর প্রায় ৪ বছর পর চলতি বছরের ৭ ফেব্রুয়ারি দেশে ছুটিতে আসেন। পরিবারের দাবি, মাস খানেক সময় থেকে নিলয় পরিবারে তাঁর স্ত্রী, বাবা-মা, ভাইদের সাথে উৎশৃঙ্খল আচরণ করেন। সবসময় উল্টো-পাল্টো কথা বলে সবার সাথে অশোভন আচরণ করেন। পরিবারের কারো কোন কথাই শুনতেন না। কি কারণে বিষপানে আত্মহত্যা ঘটনার দিন সোমবার সকালে তাঁর স্ত্রী ঝুমকি রানী মল্লিক চলে যান বাবার বাড়িতে। স্বামীর আত্মহত্যার খবর শুনে ওইদিন সন্ধ্যায় শশুরবাড়িতে ফিরেন তিনি।

নিহত নিলয়ের স্ত্রী ঝুমকি রানী জানান, ঘটনার দিন আমার স্বামীকে বলেছিলাম আমার সাথে আমার বাবার বাড়িতে যেতে। কিন্তুু তিনি যাননি। পরে আমার শশুর আমাকে বাবার বাড়িতে দিয়ে আসেন। সন্ধ্যার সময় স্বামীর বিষপানের বিষয়টি জানতে পেরে আমি ছুটে চলে আসি। স্বামীর সাথে কি নিয়ে বিরোধ বা মনমালিন্য এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, স্বামীর সাথে কোন মনমালিন্য নেই। তবে প্রবাস থেকে আসার পর তিনি আমার কোন কথা শুনেন না। সবসময় আবোল-তাবোল কথা বলতেন। কথাবার্তায় শুধু পাগলামি করতেন। কোন কারণে স্বামী বিষপান করেন সে বিষয়ে তিনি সঠিক কোন উত্তর দিতে পারেননি।

নিহত নিলয়ের ছোটভাই রঞ্জিত মল্লিক জানান, আমার ভাই প্রবাস থেকে আসার পর পরিবারের সদস্যদের সাথে হঠাৎ করে উৎশৃঙ্খল আচরণ করে। ঘটনার দিন আমি কমলগঞ্জ উপজেলায় ছিলাম আমার জন্য পাত্রী দেখতে। এলাকার লোকজনের মাধ্যমে জানতে পারি আমার ভাই বিষপান করেছে তখনই সাথে সাথে আমি ছুটে আসি। নিলয়ের স্ত্রী ঝুমকি রাণীর সাথে আপনার কোন অবৈধ সম্পর্ক ছিলো কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমার ভাইয়ের স্ত্রীর সাথে আমার কোন অবৈধ সম্পর্ক ছিলোনা। তবে আমার ভাইয়ের স্ত্রী যখন চার মাসের গভবর্তী তখন কুলাউড়া কিংবা সিলেটে ডাক্তারের কাছে আমি নিয়ে গিয়েছিলাম সেটা আমার পরিবার কিংবা ভাইয়ের শশুরবাড়ির লোকজন জানেন। এলাকার লোকজন আমাকে সামাজিকভাবে হেয়প্রতিপন্ন করার জন্য এমন অপপ্রচার চালাচ্ছে। এলাকায় আমার ভাল একটা অবস্থান রয়েছে, ভবিষ্যতে আমি মেম্বার নির্বাচন করতে চাই। এই কারণে হয়তো এলাকার লোকজন আমাকে ষড়যন্ত্রমূলকভাবে ফাঁসাতে চাচ্ছে। আমি ভাই হারিয়েছি সেই যন্ত্রণা একমাত্র আমিই বুঝবো।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. আনু মিয়া বলেন, প্রবাসী নিলয় কোন কারণে আত্মহত্যা করেছে সেটা আমি জানিনা। সেটা সে এবং তাঁর পরিবার ভালো বলতে পারবে। নিলয় কথা-বার্তায় পরিবারের সদস্যদের সাথে সবসময় অশোভন আচরণ করতো। তার পরিবারের কিছু সমস্যা নিয়ে একবার বৈঠক হয়েছিলো। বৈঠকে নিলয়কে পরিবারের সদস্যদের সাথে সুন্দরভাবে চলাফেরার জন্য বলেছি। তবে প্রবাসীর স্ত্রী অসুস্থ থাকায় ছোটভাই চিকিৎসা করিয়েছি বিষয়টি শুনেছি। পরকীয়ার বিষয়ে আমরা কোন সঠিক তথ্য পাইনি বলে তিনি অকপটে ফোন কেটে দেন।

এ বিষয়ে স্থানীয় রাউৎগাঁও ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল জলিল জামাল বলেন, প্রবাসী নিলয় তাঁর পারিবারিক বিভিন্ন সমস্যা ও তাঁর স্ত্রীর সাথে মনমালিন্যের বিষয়ে আমাকে কখনো অবগত করেনি। করলে বিষয়টি সমাধানের চেষ্ঠা করতাম। শুনেছি সে বিষপানে আত্মহত্যা করেছে।

এ ব্যাপারে কুলাউড়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো. ইয়ারদৌস হাসান বলেন, এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। তাছাড়া মৃতের মরদেহ ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এখনো পরিবারের পক্ষ থেকে লিখিত অভিযোগ করা হয়নি। অভিযোগ প্রাপ্তি স্বাপেক্ষে কি কারণে আত্মহত্যা করেছে সেটা খতিয়ে দেখা হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৫ - ২০২০
Theme Customized By BreakingNews