এমপি ইসরাফিল আলম লাইফ সাপোর্টে : পরিবারের পক্ষ থেকে দোয়া প্রার্থনা  এমপি ইসরাফিল আলম লাইফ সাপোর্টে : পরিবারের পক্ষ থেকে দোয়া প্রার্থনা  – এইবেলা
  1. admin@eibela.net : admin :
বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৫:২৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
কমলগঞ্জে জীবিত শিশুকে মৃত ঘোষণার অভিযোগ কুড়িগ্রাম ধরলা ব্রীজে চেকপোস্ট ও বিট পুলিশিং কার্যালয়ের শুভ উদ্বোধন কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরীতে ৫ কেজি গাঁজা ও মোটরসাইকেলসহ আটক-২ ফুলবাড়ীতে বিজ্ঞান অলিম্পিয়াড অনুষ্ঠিত আমেরিকার নিউইয়র্ক সিটির ব্রঙ্কস বোরো প্রেসিডেন্ট হলেন কুলাউড়ার জুয়েল কুলাউড়ায় ব্যাংক ম্যানেজারদের সাথে ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দের মতবিনিময় কুড়িগ্রামের চিলমারীতে উপ নির্বাচনে যুবলীগ সভাপতি জামান বিজয়ী কুড়িগ্রামে মাদক বিরোধী অভিযানে আটক-১ কুলাউড়ার রবিরবাজারে ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংকের উপ-শাখার উদ্বোধন কমলগঞ্জে আরডব্লিউডি ওয়াই মুভস প্রকল্পের ত্রৈমাসিক সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত

এমপি ইসরাফিল আলম লাইফ সাপোর্টে : পরিবারের পক্ষ থেকে দোয়া প্রার্থনা 

  • রবিবার, ২৬ জুলাই, ২০২০
  • ১৯৬ বার পড়া হয়েছে

নাজমুল হক নাহিদ, আত্রাই ::

নওগাঁ-৬ (আত্রাই-রাণীনগর) আস‌নের আওয়ামী লীগ দলীয় সংসদ সদস্য ইসরা‌ফিল আলম রাজধানীর একটি হাসপাতা‌লে ক‌রোনা আক্রান্ত হ‌য়ে লাইফ সাপোর্টে আছেন।

রোববার ২৬ জুলাই  সকালে তার স্ত্রী সুলতানা পারভীন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এসময় স্বামীর সুস্থতার জন্য দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন তিনি।

স্বজনরা জানান, এমপি ইসরাফিল আলম দীর্ঘদিন ধরে যক্ষা রোগে ভুগছেন। এছাড়া ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, কিডনি ও ফুসফুসের জটিল রোগে আক্রান্ত তিনি। ২০ জুন ইসরাফিল আলমের মা এসেদা রহমান মারা যান। পরদিন মায়ের জানাজায় অংশ নিয়ে দাফন সম্পন্ন করে ২২ জুন তিনি ঢাকায় ফিরে যান। এরপরই বেশি অসুস্থ হয়ে পড়লে স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করানো হয় তাকে। ভর্তির পর থেকে ক্রমেই তার শরীরের অবস্থা খারাপের দিকে যাচ্ছিল। শ্বাস-প্রশ্বাসের সমস্যা আরো জটিল অবস্থায় গেলে শনিবার দুপুরে লাইফ সাপোর্টে নেয়া হয়।

এক সময়ের রক্তাক্ত জনপদ হিসেবে পরিচিত ছিলো জেলার রাণীনগর ও আত্রাই উপজেলা। বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের সময় সর্বহারারা দিনে-দুপুরে প্রকাশ্যে এই জনপদে মানুষকে জবাই করে রাখতো। এরপর জেএমবির তান্ডব। অশান্তি আর হাহাকারের বাতাস বইতে শুরু করে এই অঞ্চলে। ঠিক তখনই আর্বিভাব ঘঠে শ্রমিক নেতা ইসরাফিল আলমের। ২০০১সালের নির্বাচনে প্রথমে তার পরাজয় হয়। এরপর যখন সর্বহারা ও জেএমবির অত্যাচার মাত্রারিক্ত হয়ে গেলো তখন এই অঞ্চলের মানুষ ২০০৮সালে নৌকা মার্কায় ৩৬বছর পর ভোট দিয়ে ধানের শীষের মনোনীত প্রার্থী আলমগীর কবিরকে পরাজিত করে বিএনপির দুর্গ হিসেবে খ্যাত নওগাঁ-৬ (আত্রাই-রাণীনগর) আসনটিতে বিজয়ী করেন শ্রমিক নেতা মো: ইসরাফিল আলমকে। এরপর ২০১৮ সালেও তিনি সেই আলমগীর কবীরকে পরাজিত করে ৩য়বারের আবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। মিডিয়া ব্যক্তিত্ব ইসরাফিল আলম তার দেওয়া কথা রেখেছেন। তিনি এমপি হওয়ার পর আওয়ামীলীগ সরকারের সার্বিক সহযোগিতায় এই রক্তাক্ত জনপদ থেকে জবাই, হানাহানি, লুণ্ঠন, ছেলে ও স্বামী হারানোর কান্না থেকে রÿা করেছেন রাণীনগর ও আত্রাই উপজেলার মানুষকে। বর্তমানে তার চৌকশ নেতৃত্বের কারণে এই অঞ্চলে শান্তির সুবাতাস বইছে। যার কারণে এই অঞ্চলের মানুষ কখনই তার বিকল্প খুঁজতে চাননি।

টানা তিনবারের সংসদ সদস্য ইসরাফিল আলমের জন্ম নওগাঁর রাণীনগর উপজেলার গোনা ইউনিয়নের ঝিনা গ্রামে। তিতাস গ্যাস কোম্পানিতে মিটার রিডার হিসেবে তিনি দীর্ঘদিন চাকরি করেছেন। তার রাজনৈতিক শিক্ষাগুরু প্রয়াত আহসান উলøাহ মাস্টার। তিনি ঢাকা মহানগর শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বে ছিলেন। চাকরি থেকে ইস্তাফা দিয়ে তিনি পুরোপুরি রাজনীতিতে আত্মনিয়োগ করেন। বর্তমানে তিনি বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় ফেডারেশনের সভাপতির দায়িত্বে আছেন। নওগাঁ জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বে রয়েছেন তিনি।। ইসরাফিল আলম অনেক গুনেগুনান্বিত। তিনি বর্তমানে টকশোর জগতে এক অনন্য ব্যক্তিত্ব। এছাড়াও তিনি একজন তারকা কণ্ঠশিল্পী ও লেখক।

মো: ইসরাফিল আলম নওগাঁ-৬ আসনে দীর্ঘ প্রায় ৩৬ বছর পর ২০০৮ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী হিসেবে ধানের শীষের মনোনীত প্রার্থী মোঃ আলমগীর কবিরকে পরাজিত করে বিএনপির দুর্গ হিসেবে খ্যাত এই আসনটিতে বিজয়ী হন। ২০১৩ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ইসরাফিল আলম সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে এলাকায় ব্যাপক উন্নয়ন করেন তিনি।

সাংসদ ইসরাফিল আলমের সহধর্মিনী সুলতানা পারভীন বিউটি তার স্বামী ইসরাফিল আলমের জন্য দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছে বলেন ইসরাফিল আলম আত্রাই-রাণীনগর উপজেলার মানুষদের জন্য নিজের জীবন বাজি রেখে এই অঞ্চলের মানুষদের সুখ আর শান্তির দায়ভার নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছিলেন। দীর্ঘসময় তিনি এই অঞ্চলের মানুষদের সুখে-দু:খে পাশে থেকেছেন। নিজের এলাকার মানুষদের শান্তির কথা ভেবে তিনি সংসার, নিজের স্ত্রী ও সন্তানদের ভুলে থাকতেন। করোনা ভাইরাসের এই সংকটময় সময়ে তিনি পরিবারকে ত্যাগ করে দীর্ঘ প্রায় ৩ মাস তিনি এসে রাণীনগর ও আত্রাই উপজেলার মানুষদের পাশে থেকে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেছেন। আজ সেই মানুষটি অসুস্থ্য হয়ে লাইফ সাপোর্টে রয়েছেন। আমি তার হয়ে আত্রাই-রাণীনগরের মানুষসহ দেশবাসীর কাছে দোয়া প্রার্থনা করছি।#

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৫ - ২০২০
Theme Customized By BreakingNews