অনৈতিক সম্পর্ক দেখে ফেলায় গলাকেটে হত্যা করা হয় ছলেমা বেগমকে অনৈতিক সম্পর্ক দেখে ফেলায় গলাকেটে হত্যা করা হয় ছলেমা বেগমকে – এইবেলা
  1. admin@eibela.net : admin :
বুধবার, ১৭ অগাস্ট ২০২২, ১০:৩৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
সাংবাদিক আব্দুল বাছিত খানের উপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে জুড়ীতে মানববন্ধন দায়সারাভাবে শোকদিবস পালন-বড়লেখায় চার প্রধান শিক্ষককে শোকজ বড়লেখায় চাচা-ভাতিজার ঝগড়া থামাতে গিয়ে হার্ট এ্যাটাকে মারা গেলেন বৃদ্ধা কমলগঞ্জ সাংবাদিকের উপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের বড়লেখায় বেগম খালেদা জিয়ার জন্মবার্ষিকী পালন ও রোগমুক্তি কামনায় দোয়া মাহফিল কুলাউড়ায় ধান ক্ষেতের পাশ থেকে যুবকের লাশ উদ্ধার কুলাউড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সাথে ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির সাক্ষাৎ বড়লেখায় হত্যা চেষ্টা মামলার রায়- ইউপি মেম্বারসহ ৩ আসামীর সশ্রম কারাদণ্ড ওসমানীনগরে বঙ্গবন্ধুর ৪৭ তম শাহাদাৎ বার্ষিকী পালিত কুলাউড়ায় ইয়াবা ব্যবসায়ী আটকে এলাকায় আনন্দ মিছিল

অনৈতিক সম্পর্ক দেখে ফেলায় গলাকেটে হত্যা করা হয় ছলেমা বেগমকে

  • বুধবার, ৫ আগস্ট, ২০২০

এইবেলা, নবীগঞ্জ ::

হবিগঞ্জের নবীগঞ্জে দুলাভাইয়ের সাথে শারীরিক সম্পর্ক দেখে ফেলায় মাকে গলা কেটে হত্যা করেছে মেয়ে ও জামাতা। এ ঘটনায় ঘাতক মেয়ে ও জামাতাকে আটক করেছে পুলিশ।

বুধবার ০৫ আগস্ট দুপুরে হবিগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ উল্ল্যা নিজ কার্যালয়ে প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান।

তিনি জানান, নবীগঞ্জ উপজেলার করগাঁও গ্রামের হিরন মিয়ার বড় মেয়ে জেসমিন আক্তারকে মোগল মিয়ার সাথে বিয়ে দেন। বিয়ের কয়েক বছর পর জেসমিন আক্তার জিবিকার তাগিদে সৌদিআরব চলে যান। এরপর থেকে মোগল মিয়া তার শিশুপুত্র ইয়াসিনকে নিয়ে শ্বশুড়ালয়ে বসবাস করছেন। এ সুযোগে মোগল মিয়া তার শালিকা শান্তি বেগমের সাথে অবৈধ সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে। দু’জনের স্থাপিত হয় শারীরিক সম্পর্ক। এক সময় তাদের শারীরিক সম্পর্ক চলাকালে নিহত ছলেমা বেগমের (মোগল মিয়ার শ্বাশুড়ি ও শান্তি বেগমের মা) হাতে ধরা পড়েন। এ সময় মেয়ে ও জামাতার সম্মানের কথা চিন্তা করে তিনি কাউকে কিছু না জানিয়ে দুজনকে কঠোরভাবে সতর্ক করে দেন। কিন্তু এরপরও তাদের অবৈধ মেলামেশা চলতে থাকে।

ঘটনার দিন (১ আগস্ট) ঈদের দিন রাতে তারা ঘরের মেজেতে আবারও অবৈধ মেলামেশা করতে থাকে। ছলেমা বেগম তাদেরকে দেখে চিৎকার করেন। এ সময় জামাতা মোগল মিয়া ও ছোট মেয়ে শান্তি বেগম মিলে ছলেমা বেগমের মুখ চেপে ধরে ঘরে থাকা দা দিয়ে গলা কেটে হত্যা করে। তার মৃত্যু নিশ্চিত করে মোগল মিয়া নিজ ঘরে গিয়ে রক্তমাখা কাপড় পরিবর্তন করে ঘুমিয়ে পরেন এবং শান্তি বেগম ডাকাত ডাকাত বলে চিৎকার শুরু করতে থাকেন। এলাকাবাসী এগিয়ে এলে তিনি জানান, তার মাকে ডাকাতদল গলাকেটে হত্যা করেছে।

পুলিশ সুপার আরও জানান, এ ঘটনায় নিহতের স্বামী হিরন মিয়া বাদি হয়ে মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনায় পুলিশ দুই ঘাতকসহ চারজনকে আটক করেছে। আটককৃতরা হবিগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছে।#

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৫ - ২০২০
Theme Customized By BreakingNews