কুড়িগ্রামের সকল থানা হবে নির্যাতিত মানুষের আশ্রয়স্থল- পুলিশ সুপার মহিবুল ইসলাম কুড়িগ্রামের সকল থানা হবে নির্যাতিত মানুষের আশ্রয়স্থল- পুলিশ সুপার মহিবুল ইসলাম – এইবেলা
  1. admin@eibela.net : admin :
শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:২৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
কমলগঞ্জে মসজিদের কমিটি নিয়ে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত-৩ কমলগঞ্জে ব্যবসায়ী নেতার বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ বড়লেখায় পুষ্টি বিষয়ে সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষে ইমামদের প্রশিক্ষণ কুলাউড়ায় এক ভুক্তভোগী পরিবারের সংবাদ সম্মেলন : মামলার বাদীসহ স্বাক্ষীদের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল  বড়লেখা চৌকি আদালত লিগ্যাল এইড বিশেষ কমিটির মাসিক সভা কমলগঞ্জে প্রেম সংক্রান্ত জেরে বন্ধুর ছুরিকাঘাতে বন্ধু আহত কমলগঞ্জে আড়াই মাস পর শিশুধর্ষণ চেষ্টাকারী পুলিশের হাতে আটক মৌলভীবাজারে সাংবাদিকদের প্রধানমন্ত্রীর চেক বিতরণ তালিকায় অনিয়ম মুরগি-ডিমের টাকাও আত্মসাৎ করল এহসান গ্রুপ! বড়লেখা চৌকি আদালত লিগ্যাল এইড বিশেষ কমিটির সভা

কুড়িগ্রামের সকল থানা হবে নির্যাতিত মানুষের আশ্রয়স্থল- পুলিশ সুপার মহিবুল ইসলাম

  • মঙ্গলবার, ১৩ অক্টোবর, ২০২০
  • ১১০ বার পড়া হয়েছে
কুড়িগ্রাম :: পুলিশ সুপার মহিবুল ইসলাম। ফাইল ছবি

রতি কান্ত রায়, কুড়িগ্রাম :: কুড়িগ্রামের সকল থানা হবে নির্যাতিত মানুষের আশ্রয়স্থল জানিয়েছেন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মহিবুল ইসলাম খান বিপিএম।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশ থেকে মাদক, ইভটিজিং, জঙ্গিবাদ, নারী ও শিশু নির্যাতন বন্ধে জিরো টলারেন্স গ্রহণ করেছেন। প্রধানমন্ত্রীর সেই প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নে কাজ করছেন কুড়িগ্রামের এসপি।

পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মহিবুল ইসলাম খান বিপিএম বলেন,আইন শৃঙ্খলার উন্নয়নসহ সকল ক্ষেত্রে দেশ আজ এগিয়ে যাচ্ছে। পুলিশের মধ্যেও ব্যাপক পরিবর্তন ঘটেছে।পুলিশী সেবা জনগণের দোড় গোড়ায় পৌঁছে দিতে গ্রামগঞ্জে শুরু হয়েছে বিট পুলিশিং কার্যক্রম।

পুলিশ সুপার বলেন, কুড়িগ্রামের সকল থানা হবে নির্যাতিত, নিপীড়িত, অসহায় মানুষের আশ্রয়স্থল। মানুষ থানায় ছুটে আসার পর যাতে দ্রুত আইনি সেবা পান এবং থানায় জিডি করতে চাইলে কোন প্রকার অজুহাত সৃষ্টি না করে ৫মিনিটের মধ্যে জিডি করতে হবে। অন্যথায় দায়িত্ব পালনে অবহেলাকারী পুলিশ কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের হুঁশিয়ারী দেন তিনি। প্রতিটি থানা দালাল ও টাউট মুক্ত করারও ঘোষণা দেন তিনি।

তিনি বলেন,নির্যাতিত মানুষের আশ্রয়স্থল ও নিরাপত্তার কেন্দ্র হবে থানা। সেবাপ্রার্থী কোনো মানুষ থানায় এসে জিডি বা মামলা করতে গিয়ে যদি কোন হয়রানির শিকার হয়, তাহলে সংশ্লিষ্ট থানার ওসির বিরুদ্ধে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।কোথাও হয়রানির শিকার হলে সরাসরি আমাকে(পুলিশ সুপার) কে জানাবেন।এছাড়াও পুলিশী সেবা পেতে ৯৯৯এ ফোন করার আহবান জানান তিনি।

তিনি আরো বলেন, বিট পুলিশিং এর মাধ্যমে কুড়িগ্রাম জেলার আনাচে কানাচে পুলিশী সেবা ছড়িয়ে দেয়া হবে।মানুষের সমস্যা সমাধান ও দ্রুত আইনি সেবা দিবে পুলিশ।

আরআর/জেএইচজে

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৫ - ২০২০
Theme Customized By BreakingNews