1. admin@eibela.net : admin :
বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ০৮:৫২ পূর্বাহ্ন

কুলাউড়ায় প্রতারণার অভিযোগে যুবলীগ নেতা লালন শ্রীঘরে

  • বুধবার, ১৮ নভেম্বর, ২০২০
  • ২১৬ বার পড়া হয়েছে

এইবেলা, কুলাউড়া ::

কুলাউড়া উপজেলায় এক প্রবাসীর স্ত্রীর করা মামলায় পলাতক থাকা ওয়ারেন্টভুক্ত আসামী যুবলীগ নেতা লালনুর রহমান (৪২) কে মঙ্গলবার ১৭ নভেম্বর রাতে গ্রেফতার করেছে কুলাউড়া থানা পুলিশ। বুধবার সকালে আদালতের মাধ্যমে তাকে জেলহাজতে প্রেরণ করেছে। গ্রেফতারকৃত লালন উপজেলার হাজীপুর ইউনিয়নের হাজিপুর গ্রামের বাসিন্দা আকলিম আলীর ছেলে ও হাজিপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, শরীফপুর ইউনিয়নের শরীফপুর গ্রামের বাসিন্দা মৃত মঈন উদ্দিনের ছেলে দুবাই প্রবাসী আক্তার উদ্দিন সাবু’র শমসেরনগরস্থ বাসায় ২০১৮ সাল থেকে ভাড়াটে হিসেবে থাকতেন হাজীপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক লালনুর রহমান (লালন)। তাদের বাসায় ভাড়াটে থাকার সুবাধে প্রবাসীর পরিবারের সাথে তার ভাল সম্পর্ক গড়ে উঠে। কয়েক মাস পর প্রবাসীর স্ত্রী ফারহানা জেসমিন প্রাইমারী স্কুলে চাকুরীর জন্য আবেদন করেন। বিষয়টি জানতে পেরে যুবলীগ নেতা লালনুর রহমান প্রবাসী আক্তার উদ্দিন সাবুকে জানায়, উপর মহলে তার অনেক পরিচিত লোক আছে। ৫ লক্ষ টাকা দিলে তার স্ত্রীর চাকুরী শতভাগ নিশ্চিত হবে। চাকুরীর প্রলোভন দেবার পর প্রবাসী তাকে বিশ্বাস করে ৩ লক্ষ টাকা প্রদান করেন এবং অবশিষ্ট টাকা লিখিত পরীক্ষার পরে দেবার সাব্যস্থ হয়। এরপর প্রবাসী সাবু তার ছুটির মেয়াদ শেষ হলে যুবলীগ নেতা লালন প্রবাসী সাবুকে জানায়, তার স্ত্রীর চাকুরীর জন্য স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর লাগবে। তখন সম্পর্কের খাতিরে সাদা স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর করে প্রবাসী সাবু দুবাই চলে যান।

এরপর প্রবাসীর স্ত্রী ফারহানা প্রাইমারী শিক্ষিকা নিয়োগ পরীক্ষা দেয়ার পর লিখিত পরীক্ষায় পাশ না করায় লালনকে জানালে সে টাকা নেয়ার কথা অস্বীকার করলে প্রবাসীর সাথে বিরোধ সৃষ্টি হয়। পরবর্তীতে প্রবাসী দেশে ফিরে লালনকে বাসা ছেড়ে দেয়ার জন্য ও তার স্ত্রীকে চাকুরী দেয়া বাবদ ৩ লক্ষ টাকা ফেরত দেওয়ার চাপ প্রয়োগ করিলে লালন প্রবাসীর কাছ থেকে স্বাক্ষর করা সাদা স্ট্যাম্প দিয়ে প্রতারণার আশ্রয় নেয়।

এরপর নাটকীয় ঘটনা সাজিয়ে আদালতে প্রবাসীর বিরুদ্ধে প্রতারণামূলক টাকা আত্মসাৎ, প্রাণণাশের হুমকি দিয়েছে মর্মে উল্টো একটি পিটিশন মামলা দায়ের করে। তখন বিষয়টির তদন্ত করেন তৎকালীন জেলা গোয়েন্দা শাখা (ডিবি) অফিসার ইনর্চাজ বিনয় ভূষণ রায়। সেই তদন্ত মোতাবেক যুবলীগ নেতা লালনের পিটিশন মামলার কোন সত্যতা পাওয়া যায়নি।

২০১৯ সালের ৩০ নভেম্বর শমসেরনগর থেকে প্রবাসী সাবু তার স্ত্রী ফারহানাকে নিয়ে বাড়ি ফেরার পথে পথিমধ্যে কুলাউড়ার চাতলাপুর বাজারের পূর্ব রাবার টিলা নামকস্থানে সিএনজি থেকে নামিয়ে স্বামী স্ত্রী উভয়কে যুবলীগ নেতা লালনুর রহমান মারপিট করেন। এ ঘটনায় প্রবাসীর স্ত্রী ফারহানা জেসমিন বাদী কুলাউড়া থানায় লালনকে প্রধান আসামী করে একটি মামলা দায়ের করলে তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি হয়। মামলার পর থেকে লালন পলাতক থাকার পর অবশেষে ১৭ নভেম্বর মঙ্গলবার রাতে শমসেরনগর চা বাগান এলাকা থেকে গ্রেফতার করে কুলাউড়া থানা পুলিশ।

আরেকটি সূত্রে জানা গেছে, লালনের ছেলে মাহিন (৯) চ্যানেল আই’র ক্ষুদে গানরাজ অনুষ্ঠানে গান গেয়ে প্রধানমন্ত্রীর হাত থেকে পুরস্কার গ্রহণের ভিডিও ফুটেজ দেখিয়ে কুলাউড়ার শরীফপুর ও হাজীপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন লোকজনের কাছে প্রতারণা করে তাদের কাছ থেকে চাকুরী দেয়ার কথা বলে টাকা হাতিয়ে নিয়েছে।

এ ব্যাপারে কুলাউড়া থানার অফিসার ইনর্চাজ বিনয় ভূষণ রায় বলেন, ওয়ারেন্টভুক্ত আসামী লালন দীর্ঘদিন পলাতক ছিল। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ১৮ নভেম্বর বুধবার সকালে আদালতের মাধ্যমে তাকে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।#

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৫ - ২০২০
Theme Customized By BreakingNews