প্রশাসন নিবির্কিার- কুলাউড়া ও রাজনগরে অবাধে চলছে টিলাকাটা প্রশাসন নিবির্কিার- কুলাউড়া ও রাজনগরে অবাধে চলছে টিলাকাটা – এইবেলা
  1. admin@eibela.net : admin :
রবিবার, ১৭ অক্টোবর ২০২১, ০৪:০৩ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
বড়লেখার ১০ ইউনিয়নে নৌকার মনোনয়ন চান ৫৩ জন কুমিল্লার ঘটনা সরকারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রেরই অংশ : পরিবেশমন্ত্রী ড. আবেদ চৌধুরীর উদ্ভাবিত আমন ধান কাটা হলো নির্ধারিত সময়ের দেড় মাস আগে  বড়লেখায় সোয়া ৩ কোটি টাকার নদী খননে ব্যাপক লুটপাটের অভিযোগ কুলাউড়ায় ৩টি পূজামন্ডপ ভাঙচুরের ঘটনায় ৫ শতাধিক আসামী : ১০ গ্রামে গ্রেফতার আতঙ্ক কবি ও কথা সাহিত্যিক দিলারা রুমার দু’টি বইয়ের মোড়ক উন্মোচন বড়লেখায় টিলা কাটায় ঘরে ফাটলে দুর্ঘটনার আশংকা কমলগঞ্জের লক্ষ্মীপুর সার্বজনীন পুজামন্ডপে সুবিধাবঞ্চিদের মধ্যে বস্ত্র বিতরণ  বিএনপি নেতার জামিনে আ’লীগ নেতাকর্মীদের আনন্দ মিছিল কুমিল্লার বিচ্ছিন্ন ঘটনায় দেশের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি যেন বিনষ্ট না হয়- সুলতান মো.মনসুর এমপি

প্রশাসন নিবির্কিার- কুলাউড়া ও রাজনগরে অবাধে চলছে টিলাকাটা

  • শুক্রবার, ১২ মার্চ, ২০২১
  • ১৫২ বার পড়া হয়েছে

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি ::

মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলার পশ্চিমে এবং রাজনগর উপজেলার পূর্বদিকে রয়েছে বিশাল পাহাড়ী জনপদ। চা বাগান আর সংরক্ষিত বনাঞ্চলের টিলা কেটে সাবাড় করা হচ্ছে। পরিবেশ অধিদপ্তর কিংবা উপজেলা প্রশাসন নামকাওয়াস্তে জরিমানা করেই যেন তাদের দায়িত্ব শেষ।

কুলাউড়া উপজেলার পশ্চিমে অবস্থিত ব্রাহ্মণবাজার, বরমচাল ও ভাটেরা ইউনিয়ন এবং রাজনগর উপজেলার টেংরা ও মুন্সীবাজার ইউনিয়ন নিয়ে বিশাল পাহাড়ী জনপদ। যেখানে ব্যক্তি মালিকানাধীন জায়গা, চা বাগান ছাড়াও রয়েছে সরকারের রিজার্ভ ফরেস্ট। রিজার্ভ ফরেস্টের বেশিরভাগ জায়গা জবর দখল হয়ে গেছে। যার সিংহভাগ খাসিয়া গারো এবং কিছুটা বাঙালিদের দখলে। জবরদখলীয় পাহাড়ী টিলায় গড়ে উঠছে জনবসতি। আর জনবসতি গড়তেই অবাদে কাটা হচ্চে পাহাড় টিলা।

সরেজমিন কুলাউড়া উপজেলার ব্রাহ্মলবাজার ও রাজনগর উপজেলার মুন্সীবাজার ইউনিয়নের পাহাড়ী জনপদ ঘুরে দেখা যায়, বিভিন্ন টিলা থেকে ট্রাক যোগে মাটি বিক্রি করা হচ্ছে। আবার অনেক স্থানে বাড়ি বানাতে জবরদখলকারীরা বিনা টাকায় মাটি দিচ্ছেন। শুধু ট্রাক ভাড়ায় মাটি নিয়ে নিম্নাঞ্চলের মানুষ তাদের ভিটেমাটি উচু করছেন।

কুলাউড়া উপজেলার হলিছড়া চা বাগানে টিলা কেটে রাস্তা নির্মাণ ও চা লাগানোর জন্য মেশিন দিয়ে টিলা কাটার অপরাধে পরিবেশ অধিদপ্তর জরিমানা করে। ফেব্রুয়ারি মাসে কুলাউড়া উপজেলার বাহ্মণবাজার ইউনিয়নের সিরাজনগর চা বাগান সংলগ্ন এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে টিলা কাটার অপরাধে ০৩ ব্যক্তিকে ৫০ হাজার টাকা করে সর্বমোট ১লাখ ৫০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। ব্রাহ্মণবাজার ইউনিয়নের নবীনগর গ্রামের আব্দুর জব্বারের পুত্র আজিজুল ইসলাম (৩০), পশ্চিম জালালাবাদ গ্রামের মৃত মদরিছ আলীর পুত্র আলিম উদ্দিন (২৮) ও মির্জাপুর গ্রামের আব্দুস সালামের পুত্র রুহেল মিয়া (৩৫)। কিন্তু তারপরও থেমে নেই মাটি কাটা। জরিমানার টাকা পুষিয়ে নিতে ওই চক্রটি যেন আরও বেপরোয়া হয়ে উঠেছে।

স্থানীয় লোকজনের সাথে কথা বলে জানা যায়, রাজনগর ইউনিযনের ইটা চা বাগান সংলগ্ন চেয়ারম্যানের টিলা থেকে প্রতিদিন অবাধে মাটি বিক্রি করা হচ্ছে। এই টিলার মালিক মুন্সীবাজার ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান। এলাকার প্রভাবশালী লোক এবং নিজের টিলা থেকে মাটি বিক্রি করছেন বলে স্থানীয় লোকজনের প্রতিবাদ করার ও কোন সুযোগ নেই।

এদিকে কুলাউড়া উপজেলার ব্রাহ্মণবাজার ইউনিয়নের পশ্চিম জালালাবাদ, নবী নগর ও মির্জাপুর এবং সিরাজনগর চা বাগানের পাশর্^বর্তী বরমচাল ইউনিয়নের পশ্চিম সিংগুর থেকে প্রতিদিন সকালে বিকেলে ট্রাক যোগে একটি সংঘবদ্ধচক্র মাটি বিক্রি করে থাকে। মাটি বিক্রিকারী ওই চক্রটি এলাকায় সন্ত্রাসী হিসেবে পরিচিত হওয়া কেউ প্রতিবাদ করার সুযোগ পায় না।

মাটি কাটা প্রসঙ্গে কুলাউড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার এটিএম ফরহাদ চৌধুরী জানান, মাটি কাটার মূহুর্তে খবর পেলে অভিযান চালিয়ে জেল জরিমানা করা যায়। অনেক সময় খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যেতে যেতে মাটি নিয়ে ট্রাক পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। তারপরও প্রশাসন খবর পেলেই ঘটনাস্থলে গিয়ে টিলাকাটা রোধে কার্যকর ব্যবস্থা নেবে।#

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৫ - ২০২০
Theme Customized By BreakingNews