কুলাউড়ায় সংরক্ষিত বনাঞ্চল দখলমুক্ত করার দাবিতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ কুলাউড়ায় সংরক্ষিত বনাঞ্চল দখলমুক্ত করার দাবিতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ – এইবেলা
  1. admin@eibela.net : admin :
মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১০:২৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
ব্যাড বয় হয়ে পর্দায় আসছেন সীমান্ত রেমালের তান্ডব : ১০ জনের মৃতু, ৩৫ হাজার ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত, বিদ্যুৎহীন ২ কোটি ৩৫ লাখ গ্রাহক সাধারণ সম্পাদকের দায়ীত্ব ফিরে পেলেন ডিপজল আত্রাইয়ের প্রতিটি বাজারে পাওয়া যাচ্ছে সুস্বাদু লিচু দামে চড়া ভালো অভিনেত্রী হয়ে একাকিত্বে জীবন কাটাতে চাইনি – প্রীতি জিনতা কুলাউড়ায় বিএনপির তিন নেতা কারাগারে কুলাউড়ার সীমান্তবর্তী শরীফপুরে ঝড়ে গাছ পড়ে ৩ সন্তানের জননীর মৃত‌্যু কুলাউড়ার সদপাশা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিদায় সংবর্ধনা কমলগঞ্জে মণিপুরি কমিউনিটি বেইজড ট্যুরিজম বিষয়ক মতবিনিময় ফুলবাড়ীর মানুষের দাবি বাংটুর ঘাটে ব্রিজ চাই

কুলাউড়ায় সংরক্ষিত বনাঞ্চল দখলমুক্ত করার দাবিতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ

  • শুক্রবার, ৩ সেপ্টেম্বর, ২০২১

এইবেলা, কুলাউড়া ::

কুলাউড়া উপজেলায় খাসিয়া কর্তৃক সামাজিক বনায়নে হামলা, উপকারভোগীদের মামলা দিয়ে হয়রানি ও জবরদখলকৃত সংরক্ষিত বনাঞ্চল দখলমুক্ত করার দাবিতে ০৩ সেপ্টেম্বর শুক্রবার স্থানীয় হায়দরগঞ্জবাজারে বিক্ষোভ মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে কর্মধা ইউনিয়নের সর্বস্তরের নাগরিকবৃন্দ।

প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তারা বলেন, খাসিয়াদের একটি সংঘবদ্ধ চক্র পানজুমের নামে সংরক্ষিত বনাঞ্চলের লাখ লাখ লাখ টাকায় ভূমি বেচাকেনা চলছে। অবিলম্বে এসব বন্ধ না করলে বাঁশমহাল, গাছমহাল কিংবা বন্যপ্রাণী কিছুই থাকবে না বনে। এমনকি সংরক্ষিত বনাঞ্চল (ডিপ ফরেস্ট) বলতে আর কিছু থাকবে না। খাসিয়ারা গোটা বনাঞ্চল তাদের দখলে নিতে চায়। নিজেরা পান কেটে সামাজিক বনায়নের উপকারভোগীদের নামে মামলা দেয়। সংশ্লিষ্ট বনকর্মকর্তার বদলী দাবি করে। খাসিয়াদের নেতৃত্বদানকারী বাবলী তালাং, সিলভেস্টার পাঠাং ও হেনরি তালাং টু খাসিয়াকে আটক করলে সংরক্ষিত বন জবরদখল বন্ধ হয়ে যাবে।

বক্তারা বলেন, সাম্প্রতিক সৃষ্ট বিরোধ নিয়ে প্রশাসন উভয়পক্ষকে নিয়ে বসে একটি দিক নির্দেশনা দেয়। কিন্তু সেই নির্দেশনা অমান্য করে গোটা সিলেট বিভাগ থেকে ভাড়া করা লোক দিয়ে মানববন্ধন করে নিরীহ উপকারভোগীদের বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করেছে। খাসিয়ারা এখনও সামাজিক বনায়নের সৃজিত বাগানের সেই জায়গা তাদের জবরদখলে রেখেছে। উপকারভোগীরা সরকারের সামাজিক বনায়ন প্রকল্প বাস্তবায়নে কাজ করে। কিন্তু প্রশাসন সেই সরকারি কাজে অংশগ্রহণকারীদের বিরুদ্ধে মামলা নিয়ে হয়রানি করে।

এছাড়া অবিলম্বে মুরইছড়া ইকোপার্ক বাস্তবায়নেরও জোর দাবি জানান বক্তারা। মুরইছড়া ইকোপার্ক বাস্তবায়ন হলে এবং খাসিয়াদের জবরদখল বন্ধ হলে সরকার বাঁশমহাল, গাছমহাল থেকে বছরে কোটি কোটি রাজস্ব আয় হবে।

মানববন্ধন শেষে প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য দেন হারিছ আলী, সৈয়দ আব্দুল বাছিত, ইছরাইল আলী, মো. রফিক আলী, আছকির আলী, ফারুক মিয়া প্রমুখ।

মানববন্ধন শেষে এক বিক্ষোভ মিছিল স্থানীয় হায়দরগঞ্জ বাজার প্রদক্ষিণ করে।##

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২২ - ২০২৪
Theme Customized By BreakingNews