মুরগি-ডিমের টাকাও আত্মসাৎ করল এহসান গ্রুপ! মুরগি-ডিমের টাকাও আত্মসাৎ করল এহসান গ্রুপ! – এইবেলা
  1. admin@eibela.net : admin :
রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ০৬:৩৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
কুলাউড়ার সীমান্তবর্তী শরীফপুরে ঝড়ে গাছ পড়ে ৩ সন্তানের জননীর মৃত‌্যু কুলাউড়ার সদপাশা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিদায় সংবর্ধনা কমলগঞ্জে মণিপুরি কমিউনিটি বেইজড ট্যুরিজম বিষয়ক মতবিনিময় ফুলবাড়ীর মানুষের দাবি বাংটুর ঘাটে ব্রিজ চাই কমলগঞ্জ উপজেলা বিএনপি নেতা রানার স্বেচ্ছায় অব্যাহতি মায়ের ওড়নাকে শাড়ীতে রুপান্তর করলেন জেফার আজ আইপিএলের ফাইনাল, বৃষ্টির শঙ্কা জুড়ীতে মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের স্থান নির্বাচন করার দাবি দ্রোহী আর সাম্যের কবি নজরুল বাঙালি মনীষার এক তুঙ্গীয় নিদর্শন ও দার্শনিক  উপজেলা নির্বাচন : আত্রাইয়ে নির্বাচনী সহিংসতায় আহত-৪, আটক-৮

মুরগি-ডিমের টাকাও আত্মসাৎ করল এহসান গ্রুপ!

  • শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০২১

নিউজ ডেস্ক:-শরিয়াভিত্তিতে লভ্যাংশ দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে কয়েকশ কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে এহসান গ্রুপ। এই গ্রুপের চেয়ারম্যান রাগীব আহসান মানুষের ধর্মীয় অনুভূতিকে পুঁজি করে প্রতারণার আশ্রয় নিয়ে টাকা হাতিয়ে নেন। তিনশ কর্মচারী খাটালেও তাদের বেতন দিতে হতো না। তারাই গ্রাহক জোগাড় করে এনে দিতেন। গ্রাহকের পাশাপাশি এই কর্মচারীরাও প্রতারণার শিকার হয়েছেন।

গত ৯ সেপ্টেম্বর রাতে র‌্যাব সদর দপ্তরের গোয়েন্দা শাখা ও র‌্যাব-১০ এর একটি আভিযানিক দল রাজধানীর তোপখানা রোড এলাকায় অভিযান চালিয়ে রাগীব আহসান (৪১) ও তার সহযোগী আবুল বাশার খানকে (৩৭) গ্রেফতার করে। এ সময় তাদের কাছ থেকে ভাউচার বই, মোবাইল ফোনসহ বিভিন্ন জিনিসপত্র উদ্ধার করা হয়। এ ছাড়া পিরোজপুরে গ্রেফতার হয়েছে তার আরও দুই ভাই।

এহসান গ্রুপের এমডি রাগীব আহসানকে গ্রেফতারের পর তাদের নানা প্রতারণার খবর বেরিয়ে আসছে। বেশি লাভের আশায় প্রতিষ্ঠানটিতে বিনিয়োগ করে নিঃস্ব হয়ে এখন পথে বসেছেন বহু গ্রাহক। এহসান গ্রুপের প্রতারণা থেকে মানুষের ডিম ও মুরগি বিক্রির জমানো টাকাও বাদ যায়নি।

পিরোজপুর শহরের পিটিআই এলাকার বাসিন্দা দিনমজুর আবদুর রাজ্জাক। এহসান গ্রুপে টাকা বিনিয়োগ করে প্রতারণার শিকার হয়েছেন তিনি। গায়ে খেটে উপার্জন করা টাকা বিনিয়োগ করেছিলেন এহসান গ্রুপে। রাজ্জাকের অভিযোগ, তার মায়ের ডিম ও মুরগি বিক্রির টাকাও বিনিয়োগ করিয়ে আত্মসাৎ করেছে এহসান গ্রুপ।

এহসান গ্রুপের কার্যক্রম সুদমুক্ত জেনে রাজ্জাক ৫০ হাজার ও তার বাবা বিভিন্ন জিনিসপত্র বিক্রি করে ১ লাখ টাকা বিনিয়োগ করেছিলেন সেখানে। রাজ্জাক জানান, তার মা রহিমা বেগম বাড়িতে দেশি মুরগি পালন করতেন। মুরগি ও ডিম বিক্রি করে ৫০ হাজার টাকা জমিয়েছিলেন মা। শরিয়াভিত্তিতে লভ্যাংশ দেওয়ার প্রতিশ্রুতিতে এহসান গ্রুপে সেই টাকাও জমা দেওয়া হয়। মেয়াদ শেষ হওয়ার পর সেই টাকা ভাঙিয়ে আবার এককালীন পদ্ধতিতে জমা রাখা হয়। এখন ওই টাকা আর ফেরত দিচ্ছে না এহসান গ্রুপ।

এহসান গ্রুপের কাছে ৫ লাখ টাকা পাওনা বলে দাবি করেন রাজ্জাক। তিনি এই টাকা ফেরত পেতে প্রশাসনের সহায়তা চেয়েছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২২ - ২০২৪
Theme Customized By BreakingNews