কুলাউড়ায় ইসলামী পাঠাগার ভবনের ভিওিপ্রস্তর স্হাপন কুলাউড়ায় ইসলামী পাঠাগার ভবনের ভিওিপ্রস্তর স্হাপন – এইবেলা
  1. admin@eibela.net : admin :
সোমবার, ২৩ মে ২০২২, ০৫:১০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
বড়লেখায় ঘরে অবরুদ্ধ অর্ধমৃত গৃহবধুকে পুলিশের উদ্ধার কমলগঞ্জে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবলে কমলগঞ্জ পৌরসভা চ্যাম্পিয়ান       বড়লেখায় ভুমিসেবা সপ্তাহে প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘরপ্রাপ্ত ১৬ পরিবারকে জমির দলিল হস্তান্তর ভোরের কাগজের বিরুদ্ধে মামলা : বড়লেখায় প্রেসক্লাবের প্রতিবাদ সভা কুলাউড়ায় অগ্নিকান্ড জনিত দূর্যোগ মোকাবেলায় করণীয় বিষয়ক প্রশিক্ষণ সমাপ্ত রাজনগরে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গাছের সাথে পুলিশের গাড়ির ধাক্কা এসআই’র মৃত্যু কুলাউড়ায় চা শ্রমিক সমাবেশে নাদেল – চা শ্রমিকদের সকল সুবিধা নিশ্চিত করবে সরকার বড়লেখায় কেক কেটে ইউএনও’র বর্ষপূর্তি পালন বড়লেখায় সাংবাদিক লাভলুর চাচা আরব আলীর কোলখানি বড়লেখায় ইউএনও’র এক বছর পূর্ণ হচ্ছে ২০ মে

কুলাউড়ায় ইসলামী পাঠাগার ভবনের ভিওিপ্রস্তর স্হাপন

  • শনিবার, ২২ জানুয়ারী, ২০২২

এইবেলা, কুলাউড়া ::

কুলাউড়ায় মাস্টার আব্দুল মন্নান-সৈয়দা নূরুন নাহার ইসলামী পাঠাগার ভবনে ভিওি প্রস্তর স্হাপন করা হয়েছে।  উপজেলার রাউৎগাঁও ইউনিয়নের ৩ নং ওয়াডের কবিরাজী গ্রামে প্রবাসী সানোয়ার হোসের অর্থয়নে নির্মাণ করা হচ্ছে ইসলামী পাঠাগার।

এ উপলক্ষে গত ২১জানুয়ারী বাদ জুম্মা প্রস্তাবিত এই পাঠাগারের ভিওপ্রস্তর করা হয়।ভিতিপ্রস্তর করেন কবিরাজী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠা ও প্রাক্তণ সহকারী শিক্ষক উক্ত প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা মাস্টার আব্দুল মন্নান তালুকদার। এসময় উপস্হিত ছিলেন কবিরাজী জামে মসজিদ পরিচালনা কমিটির সহ সভাপতি আব্দুল লতিফ তালুকদার।কবিরাজী কবর স্হান কমিটির সভাপতি ও কুলাউড়া বি আর ডিবির ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ তাজুল ইসলাম।দুলাল হোসেন তালুকদার, আবদুল কদ্দুছ,শাহীন আহমদ সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।দোয়া পরিচালনা করেন কবিরাজী জামে মসজিদের মোয়াজ্জিম মোঃ আনোয়ার হোসেন তালুকদার।

আব্দুল মন্নান বলেন, আমি ছাত্রজীবনে আমার গ্রামের মানুষদের নিয়ে কবিরাজী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করি ১৯৬০ সালে।আমার ইচ্ছা ছিল স্কুলটিকে হাইস্কুল করা,জমি ও সংগ্রহ করেছিলাম।কিন্তুু মুক্তিযোদ্ধদের সময় সব নষ্ঠ হয়ে যায়।আমার চিন্তাছিল এলাকার স্কুল, রাস্তা নির্মাণসহ সামাজিক উন্নয়ন করা।এগুলো করতে আমার বাবা সহ পরিবারে অনেক বুকুনি খেয়েছি। তিনি বলে আমি বিলাশ বহুল জীবন যাপনের বাহিরে যাওয়ার অনেক সুযোগ পেয়ে ও যাই নি। আমার শেষ ইচ্ছা ইসলামী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান করে যাওয়া। প্রর্যন্মের জন্য কিছু জিনিস যেখে যেতে চাই। যা সামাজ ও জাতির কাজে আসবে। আমরা সবাই চলে যাব শুধু থাকবে আমাদের কর্ম। মৃত্যুর পর যেন কবর থেকে কুরআন তেলাওয়াতের আওয়াজ শুনতে পাই। সেই লক্ষে কবরস্হানের পাশে এই ইসলামী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা করছি। আল্লাহ যেন কবুল করেন। সবাই দোয়া করবেন।#

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৫ - ২০২০
Theme Customized By BreakingNews