কুলাউড়ায় ইসলামী পাঠাগার ভবনের ভিওিপ্রস্তর স্হাপন কুলাউড়ায় ইসলামী পাঠাগার ভবনের ভিওিপ্রস্তর স্হাপন – এইবেলা
  1. admin@eibela.net : admin :
রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ০৯:১৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
কুলাউড়ার জয়চন্ডীতে পঞ্চায়েত প্রধানের উপর হামলা: ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী প্রধানমন্ত্রী চান না খাদ্যাভাবে কোনে মানুষ মারা যাক : প্রতিমন্ত্রী শফিক চৌধুরী এমপি বড়লেখায় এলজিইডি’র নারী কর্মীদের সঞ্চয়ের সোয়া কোটি টাকার চেক বিতরণ বড়লেখার বোবারথলের রাস্তা ও কালভার্ট বিধ্বস্ত-চরম দুর্ভোগ কুলাউড়ার পানিতে ডুবে দুই শিশুর মৃত্যু  কুলাউড়ায় পথে পথে গরুর হাট : বাজারবিমুখ ক্রেতারা কুলাউড়ার বরমচালে শিশুর মাছ ধরাকে কেন্দ্র করে হামলা ও ঘরবাড়ি ভাঙচুরের অভিযোগ বড়লেখা থানা পুলিশের অভিযানে ৫ চোরাই গরু উদ্ধার, গ্রেফতর ২ কমলগঞ্জে মাগুরছড়া ট্র্যাজেডি দিবস পালিত ১৪ হাজার কোটি টাকার ক্ষতিপূরণ দাবি ১৪ জুন কমলগঞ্জের মাগুরছড়া বিস্ফোরণের ২৭ বছর

কুলাউড়ায় ইসলামী পাঠাগার ভবনের ভিওিপ্রস্তর স্হাপন

  • শনিবার, ২২ জানুয়ারী, ২০২২

এইবেলা, কুলাউড়া ::

কুলাউড়ায় মাস্টার আব্দুল মন্নান-সৈয়দা নূরুন নাহার ইসলামী পাঠাগার ভবনে ভিওি প্রস্তর স্হাপন করা হয়েছে।  উপজেলার রাউৎগাঁও ইউনিয়নের ৩ নং ওয়াডের কবিরাজী গ্রামে প্রবাসী সানোয়ার হোসের অর্থয়নে নির্মাণ করা হচ্ছে ইসলামী পাঠাগার।

এ উপলক্ষে গত ২১জানুয়ারী বাদ জুম্মা প্রস্তাবিত এই পাঠাগারের ভিওপ্রস্তর করা হয়।ভিতিপ্রস্তর করেন কবিরাজী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠা ও প্রাক্তণ সহকারী শিক্ষক উক্ত প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা মাস্টার আব্দুল মন্নান তালুকদার। এসময় উপস্হিত ছিলেন কবিরাজী জামে মসজিদ পরিচালনা কমিটির সহ সভাপতি আব্দুল লতিফ তালুকদার।কবিরাজী কবর স্হান কমিটির সভাপতি ও কুলাউড়া বি আর ডিবির ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ তাজুল ইসলাম।দুলাল হোসেন তালুকদার, আবদুল কদ্দুছ,শাহীন আহমদ সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।দোয়া পরিচালনা করেন কবিরাজী জামে মসজিদের মোয়াজ্জিম মোঃ আনোয়ার হোসেন তালুকদার।

আব্দুল মন্নান বলেন, আমি ছাত্রজীবনে আমার গ্রামের মানুষদের নিয়ে কবিরাজী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করি ১৯৬০ সালে।আমার ইচ্ছা ছিল স্কুলটিকে হাইস্কুল করা,জমি ও সংগ্রহ করেছিলাম।কিন্তুু মুক্তিযোদ্ধদের সময় সব নষ্ঠ হয়ে যায়।আমার চিন্তাছিল এলাকার স্কুল, রাস্তা নির্মাণসহ সামাজিক উন্নয়ন করা।এগুলো করতে আমার বাবা সহ পরিবারে অনেক বুকুনি খেয়েছি। তিনি বলে আমি বিলাশ বহুল জীবন যাপনের বাহিরে যাওয়ার অনেক সুযোগ পেয়ে ও যাই নি। আমার শেষ ইচ্ছা ইসলামী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান করে যাওয়া। প্রর্যন্মের জন্য কিছু জিনিস যেখে যেতে চাই। যা সামাজ ও জাতির কাজে আসবে। আমরা সবাই চলে যাব শুধু থাকবে আমাদের কর্ম। মৃত্যুর পর যেন কবর থেকে কুরআন তেলাওয়াতের আওয়াজ শুনতে পাই। সেই লক্ষে কবরস্হানের পাশে এই ইসলামী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা করছি। আল্লাহ যেন কবুল করেন। সবাই দোয়া করবেন।#

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২২ - ২০২৪
Theme Customized By BreakingNews