বড়লেখার সুজানগর ইউপিতে সেবাগ্রহীতার অসদাচরণে কর্মবিরতি বড়লেখার সুজানগর ইউপিতে সেবাগ্রহীতার অসদাচরণে কর্মবিরতি – এইবেলা
  1. admin@eibela.net : admin :
মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ০৭:০১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
কমলগঞ্জে বিনা ধান-২৫ এর পরীক্ষামূলক চাষাবাদে বাম্পার ফলন কমলগঞ্জে গলায় ফাঁস দিয়ে চা শ্রমিকের আত্মহত্যা কুলাউড়া ইউনিয়ন ওয়াটসান কমিটির ওয়াশ বিষয়ক ওরিয়েন্টেশন কুড়িগ্রামে সাপের কামড়ে প্রাণ গেলো কৃষকের   রাজারহাটে বাল্য বিবাহ বন্ধে লোকসংগীত ও পথ নাটক কুলাউড়া পৌরসভার ২য় মেধাবৃত্তি পরীক্ষার পুরস্কার বিতরণ বৃহত্তর সিলেট জেলা অনলাইন প্রেসক্লাবের ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত কুলাউড়ায় ট্রেনে কাটা পড়ে অজ্ঞাত নারীর মৃত্যু নিহত ওসি মোস্তাফিজের স্মৃতিতে নির্মিত গোলঘর ‘প্রেরণা’র উদ্বোধন করলেন প্রতিমন্ত্রী শফিক চৌধুরী এমপি মনু নদীর চাতলাঘাটে আইন অমান্য করে বালু উত্তোলন : বিপর্যস্ত হচ্ছে পরিবেশ

বড়লেখার সুজানগর ইউপিতে সেবাগ্রহীতার অসদাচরণে কর্মবিরতি

  • বৃহস্পতিবার, ২৭ অক্টোবর, ২০২২

বড়লেখা প্রতিনিধি :

বড়লেখা উপজেলার সুজানগর ইউনিয়ন পরিষদে বুধবার বিকেলে একজন সেবাগ্রহীতার অসদাচরণ ও হুমকি-ধমকির ঘটনায় বৃহস্পতিবার ইউনিয়নের সবধরণের সেবা কার্যক্রম বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। ইউপি সচিব, সহকারী হিসাব রক্ষক, উদ্যোক্তা, গ্রাম পুলিশসহ সকল কর্মচারীরা ইউনিয়ন অফিস বন্ধ করে কর্মবিরতি পালন করেছেন। এতে মারাত্মক দুর্ভোগে পড়েছেন সেবাগ্রহীতারা।

জানা গেছে, বুধবার বিকেল সোয়া তিনটার দিকে রফিনগর গ্রামের কামাল উদ্দিন নামের একজন সেবাগ্রহীতা ইউপি সচিব আবু শাহীনের কার্যালয়ে গিয়ে কয়েকটি জন্মনিবন্ধনের কাজ করে দিতে বলেন। এসময় সচিব সরকারী জরুরী দাপ্তরিক কাজের ব্যস্ততা দেখিয়ে পরের দিন সকালে আসতে অনুরোধ করায় তিনি সচিবের সাথে অসদাচরণ শুরু করেন। এসময় প্যানেল চেয়ারম্যান ফখরুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন। পরে ইউপি সচিব গ্রাম পুলিশসহ পরিষদের সকল কর্মচারীদের ডেকে নিয়ে কর্মবিরতির ডাক দেন।

বৃহস্পতিবার দুপুরে ইউনিয়ন পরিষদে গিয়ে ইউপি সচিব ও উদ্যোক্তার কার্যালয়সহ সব বিভাগের দরজা তালাবদ্ধ থাকতে দেখা গেছে। পোষাকধারী কোন গ্রাম পুলিশকেও দেখা যায়নি। বিভিন্ন কাজে আসা লোকজনের ভিড় দেখা যায়। মেয়ের জন্মনিবন্ধন করাতে আসা রফিনগর গ্রামের কবির আহমদ ও পাটনা গ্রামের নাজিম উদ্দিন জানান, সকাল থেকে দূরদুরান্তের অনেক মানুষ বিভিন্ন কাজে ইউনিয়নে এসে ফিরে গেছেন। মানুষজন চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন। নাম প্রকাশ না করার শর্তে একজন গ্রাম পুলিশ জানান, ‘নিরাপত্তা জনিত কারণে সচিব স্যার আমাদের সাথে পরামর্শ করে বিষয়টির সুষ্ঠু সমাধান না হওয়া পর্যন্ত কর্মবিরতি চালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন।’

এব্যাপারে ইউপি সচিব আবু শাহীন জানান, তিনি যোগদানের পর জনসাধারণের সেবা প্রদানে শৃঙ্খলা এনেছেন। সকাল আটটা থেকে দুপুর একটা পর্যন্ত জন্মনিবন্ধনের সেবাপ্রদানের জন্য সময় নির্ধারণ করা রয়েছে। এরপর সরকারী দাপ্তরিক কাজে সময় দেন। কামাল উদ্দিন নামের সেবাগ্রহীতা সোয়া তিনটার দিকে অফিসে এসে বেশ কয়েকটি জন্মবিন্ধনের আবেদন কপি দিয়ে এক্ষুণি করে দিতে বলেন। পরের দিন সকালে করে দেওয়ার কথা বলতেই তিনি উত্তেজিত হয়ে চরম অসদাচরণ করেন। কাজ করে না দিলে অফিস কেন খোলা রাখলাম এরও কৈফত চান। এরপর বিষয়টি তিনি ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউএনও মহোদয়কে জানিয়ে বৃহস্পতিবার কর্মবিরতি পালন করেন।

ইউপি চেয়ারম্যান বদরুল ইসলাম জানান, বুধবার তিনি অফিসে যাননি। একজন সেবাগ্রহীতার অসদাচরণ ও হুমকি-ধমকির বিষয়টি সচিব তাকে ও ইউএনও মহোদয়কে অবহিত করেছেন। বিষয়টি নিষ্পত্তির চেষ্টা চলছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২২ - ২০২৪
Theme Customized By BreakingNews