- মৌলভীবাজার, রাজনীতি

কমলগঞ্জের পতনঊষার ইউনিয়নে আওয়ামীলীগ প্রার্থীর রেকর্ড

এইবেলা, কমলগঞ্জ, ২৯ মে :: সবকটি (১০টি কেন্দ্র) কেন্দ্রে নৌকা প্রতীক নিয়ে বিপুল ভোটে বিজয়ী হয়ে ভোটের রেকর্ড সৃষ্টি করলেন মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার ২নং পতনঊষার ইউনিয়নের আওয়ামীলীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার মো. তওফিক আহমদ বাবু। গত শনিবার (২৮ মে ) অনুষ্ঠিত ৫ম দফায় ইউপি নির্বাচনে বিএনপির ঘাটি হিসেবে খ্যাত পতনঊষার ইউনিয়নে তিনি এ বিজয় লাভ করেন।

বিগত ২টি নির্বাচনে তিনি পরাজিত হয়েছিলেন। ফলাফল বিশ্লেষনে বোঝা যায়, দলীয় প্রতীকের কারণে কারণে নয় ব্যক্তি ইমেজকে কাজে লাগিয়ে বিগত একযুগ ধরে পতনঊষার ইউনিয়নের মানুষের সুখ-দু:খের সাথী ও এলাকার সার্বিক উন্নয়নে ভূমিকা রাখার কারণে ৬১২৪ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী, পতনঊষার ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি ও কমলগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের সিনিয়র সহ সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার মো. তওফিক আহমদ বাবু। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে বিএনপির মনোনীত প্রার্থী অলি আহমদ খান পেয়েছেন ২৮০৪ ভোট। এই বিজয়ে উল্লসিত পতনঊষার ইউনিয়নের দলীয় নেতকার্মী সহ সাধারণ মানুষজন।

রোববার আওয়ামীলীগ প্রার্থী নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার মো. তওফিক আহমদ বাবু ছুটে যান তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দি বিএনপি মনোনীত প্রার্থী অলি আহমদ খানের বাড়িতে। তিনি অলি আহমদ খানকে মিষ্টি মুখ করান এবং পরিবার সদস্যদের সাথে কুশল বিনিময় করে দায়িত্ব পালনে সর্বপ্রকার সাহায্য কামনা করেন।

পতনঊষার ইউনিয়নে মোট ১০ হাজার ৪০৬ ভোটের মধ্যে ১১ হাজার ৫৯৩ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। এর মধ্যে ২২৯টি ভোট বাতিল হয়। মোট ১০টি কেন্দ্রের ১০টি কেন্দ্রেই আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার মো. তওফিক আহমদ বাবু বিপুল ভোটে জয়লাভ করেন। এ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান প্রার্থী ছিলেন মোট ৭ জন।

এর মধ্যে লাঙ্গল প্রতীক নিয়ে জাতীয় পার্টির মনোনীত প্রার্থী মোহাম্মদ জরিপ হোসেন পেয়েছেন ১১৩ ভোট, চশমা প্রতীক নিয়ে আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী বদরুজ্জামান চৌধুরী পেয়েছেন ১৮২৫ ভোট, মোটর সাইকেল প্রতীক নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. মাহমুদুর রহমান পেয়েছেন ৬২৩ ভোট, আনারস প্রতীক নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী শেখ আসাদুজ্জামান চৌধুরী পেয়েছেন ৯৩ ভোট ও ঘোড়া প্রতীক নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী আজিজ চৌধুরী পেয়েছেন ১১ ভোট। কমলগঞ্জ উপজেলায় ৯টি ইউনিয়নের নির্বাচন সম্পন্ন হলেও শুধুমাত্র এই পতনঊষার ইউনিয়নেই একমাত্র আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী এতো বেশি ভোটের রেকর্ড সৃষ্টি করে জয় পেয়েছেন। সাধারণ মানুষজনের অভিমত, আওয়ামীলীগ প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার মো. তওফিক আহমদ বাবু একজন ভাল লোক।

সিলেট পলিটেকনিক ইনষ্টিটিউটের প্রভাষক পদ থেকে চাকুরী ছেড়ে দিয়ে প্রায় ১১ বছর পূর্বে ুিনজ এলাকায় এসে রাজনীতিতে সক্রিয়ভাবে যোগদান করেন। বিগত ২টি নির্বাচনে তিনি প্রতিদ্বন্দিতা করলেও বিজয়ী হতে পারেননি। তবে হাল ছাড়েননি বাবু। এলাকার সার্বিক উন্নয়নে তার ভূমিকা ছিল চোখে পড়ার মত। এজন্য সাধারণ দলমত নির্বিশেষে সাধারণ মানুষের প্রচন্ড দুর্বলতা ছিল তার প্রতি। অনেকেই জানান, দল যার যার-বাবু সবার।

কমলগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি এম, মোসাদ্দেক আহমেদ মানিক ও সাধারণ সম্পাদক উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যাপক রফিকুর রহমান বলেন, স্বাধীনতা পরবর্তী পতনঊষার ইউনিয়নে এতো বেশি ভোট পেয়ে কোন চেয়ারম্যান প্রার্থী জয় পায়নি। তার মধ্যে এই প্রথম বারের মতো রেকর্ড সংখ্যক ভোটে আওয়ামীলীগ প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার মো. তওফিক আহমদ বাবু বিজয়ী হলেন।

এতেই প্রতীয়মান হয় যে, এদেশের মানুষ আওয়ামীলীগকে কতটা ভালবাসে। বিপুল ভোটে আওয়ামীলীগ প্রার্থীকে বিজয়ী করায় তিনি পতনঊষার ইউনিয়নবাসীকে অভিনন্দন জ্ঞাপন করেন। নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার মো. তওফিক আহমদ বাবু বলেন, শত বাঁধা বিপত্তি ও ষড়যন্ত্র উপেক্ষা করে আমার প্রতি এলাকার সর্বদলীয় মানুষের অকৃত্রিম ভালোবাসা ও উন্নয়নের প্রতীক নৌকার জনপ্রিয়তাই আমাকে এই সফলতা এনে দিয়েছে। তিনি ইউনিয়নবাসীর কাছে কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, আমি আপনাদের কাছে চিরঋনি। আমি চেষ্টা করব সর্ব মহলের সহযোগিতা নিয়ে এ ইউনিয়নকে একটি আধুনিক ও মডেল ইউনিয়ন করা।#

 রিপোর্ট-প্রনীত রঞ্জন দেবনাথ

About eibeleamialabula

Read All Posts By eibeleamialabula

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *