বড়লেখায় সীমান্ত এলাকা থেকে ৩০টি ভারতীয় মহিষ আটক বড়লেখায় সীমান্ত এলাকা থেকে ৩০টি ভারতীয় মহিষ আটক – এইবেলা
  1. admin@eibela.net : admin :
বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ১২:০৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
 মৌলভীবাজারে বহুদলীয় প্লাটফর্ম পিস ফ্যাসিলিটেটর গ্রুপের কমিটি গঠন কমলগঞ্জে এসএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা ও শিক্ষার্থীদের স্কুল ব্যাগ বিতরণ নিয়োগ বানিজ্যের অভিযোগে ২১ দিন ধরে স্কুলে ঝুলছে তালা বিক্ষোভ ও মানববন্ধন আত্রাইয়ে রাজা-বাদশাকে বের করতে ভাঙতে হবে ঘরের দেয়াল দুখি মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী—-সিলেটের বিভাগীয় কমিশনার কমলগঞ্জে সাবেক প্রধান শিক্ষক মো. সিকন্দর আলী স্মরণে নাগরিক শোকসভা অনুষ্ঠিত বড়লেখায় হরিণ হত্যা ও পাচারে চামড়া মজুদ মামলায় দন্ডিত ব্যবসায়ি সাইদুল ভাইসহ কারাগারে জুড়ী পানিতে ডুবে এক শিশুর মৃত্যু : অপর শিশুর অবস্থা আশঙ্কাজনক শ্রীমঙ্গলে বহুদলীয় প্লেটফর্ম পিস ফ্যাসিলিটেটর গ্রুপের ত্রিমাসিক পরিকল্পনা প্রণয়ন সভা কমলগঞ্জে আরডব্লিউডিও ওয়াই মুভস প্রকল্পের প্রকল্প সমাপনী অনুষ্ঠান

বড়লেখায় সীমান্ত এলাকা থেকে ৩০টি ভারতীয় মহিষ আটক

  • বৃহস্পতিবার, ২৫ জুন, ২০২০

আব্দুর রব, বড়লেখা :

বড়লেখা উপজেলার বোবারথল সীমান্ত দিয়ে চোরাই পথে আসা ২০ লক্ষাধিক টাকার ৩০টি ভারতীয় অবৈধ মহিষ আটক করেছে ৫২ বিজিবি। উপজেলার সদর ইউনিয়নের গঙ্গারজল এলাকায় বৃহস্পতিবার সকালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বিজিবি এ অভিযান চালায়। এসময় মহিষ পাচারকারীরা পালিয়ে যায়। বিকেলে বিজিবি জুড়ী কাস্টমস অফিসে মহিষগুলো জমা দিয়েছে।

জানা গেছে, ভারতের আসাম রাজ্যের করিমগঞ্জ জেলার কয়েকটি থানার সাথে বড়লেখা উপজেলার অন্তত ৩০ কি. মিটার সীমান্ত রয়েছে। এ সীমান্তের বোবারথল, বিওসিটিলা, পেকুছড়াসহ কয়েকটি স্পটকে ট্রানজিট রোড হিসেবে প্রভাবশালী চোরাকারবারী সিন্ডিকেট ভারতীয় গরু-মহিষ, মদ, মোটরসাইকেল, সিগারেট, নাসির উদ্দিন বিড়িসহ বিভিন্ন অবৈধ পণ্য পাচার করছে। গত বছরের ২১ সেপ্টেম্বর একটি জাতীয় ও স্থানীয় দৈনিকে ‘বড়লেখা সীমান্ত : মহিষ চোরাকারবারীরা ফের সক্রিয়’ শিরোনামে একটি সংবাদ ছাপা হলে বিজিবি তৎপর হওয়ায় দীর্ঘদিন ভারতীয় মহিষ পাচার বন্ধ থাকে। পরবর্তীতে সীমান্তরক্ষীদের চোখ ফাঁকি দিয়ে চোরাকারবারীরা করোনা সংক্রমণের আশংকার মধ্যেও মহিষ পাচার শুরু করে। মধ্যে কিছু দিন বন্ধ থাকলেও গত প্রায় ১ মাস ধরে চোরাকারবারীরা আবার বেপরোয়া হয়ে উঠে। ভারতীয় ও বড়লেখার পাচারকারী সিন্ডিকেট প্রতিদিন ৫০ থেকে ২০০টি পর্যন্ত ভারতীয় মহিষ বড়লেখার বিভিন্ন সীমান্ত দিয়ে অবৈধভাবে দেশের অভ্যন্তরে আনতে থাকে। বিজিবি’র জুড়ী কোম্পানী কমান্ডার গোপন তথ্যে জানতে পারেন বড়লেখা সীমান্তের মেইন পিলার ১৩৮২/৪-এস সংলগ্ন এলাকা দিয়ে একটি বড় ধরনের মহিষের চালান দেশে ঢুকেছে।

এ তথ্যের ভিত্তিতে জুড়ী কোম্পানীর টহল কমান্ডার সুবেদার মো. ইমাম হোসেনের নেতৃত্বে জুড়ী বিওপি’র টহল দলসহ পাশ্বর্বতী বিওসিটিলা, লাতু এবং বোবারথল বিওপি’র ২৪ জন বিজিবি সদস্য বৃহস্পতিবার সকালে মেইন পিলার পিলার ১৩৮২/৪-এস হতে ৭ কি. মিটার অভ্যন্তরে বড়লেখা উপজেলার গঙ্গারজল নামক স্থানে অবস্থান নেন। শতাধিক ভারতীয় মহিষের পাল নিয়ে চোরাচালানীরা অগ্রসর হলে বিজিবি তাদেরকে ধাওয়া করে ৩০ টি মহিষ আটক করেছে।

বিজিবি ৫২ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল গাজী শহীদুল্লাহ জানান, বিজিবি’র উপস্থিতি টের পেয়ে ঝোপঝাড়ের মধ্যে মহিষ পেলে চোরাকারবারীরা পালিয়ে যায়। এসময় বিজিবি ৩০টি ভারতীয় অবৈধ মহিষ আটক করেছে, যার সিজার মূল্য ১৮ লাখ ২০ হাজার টাকা। আটক ভারতীয় অবৈধ মহিষগুলো বৃহস্পতিবার বিকেলে জুড়ী কাস্টমস অফিসে জমা দিয়েছে বিজিবি।#

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২২ - ২০২৪
Theme Customized By BreakingNews