1. admin@eibela.net : admin :
সোমবার, ১০ অগাস্ট ২০২০, ০৫:২৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
বড়লেখায় ১৫ স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনকে সংবর্ধনা বঙ্গবন্ধুর ৪৫ শহাদাৎ বার্ষিকী উপলক্ষে- কুলাউড়ায় প্রস্তুতিমুলক সভা কুলাউড়ায় কাস্টমস ও ব্যাংক কর্মকর্তাসহ নতুন ৭ জনের করোনা শনাক্ত কাতারে সড়ক দূর্ঘটনায় কুলাউড়ার জুয়েলের মৃত্যু কুলাউড়ার ব্রাহ্মণবাজারের পরিচিত মুখ মহসিনের আকস্মিক মৃত্যু বড়লেখায় পিডিবির বিরুদ্ধে গ্রাহক হয়রানীর অভিযোগ কুলাউড়ার গোগালিছড়া জলমহাল ২ বছর থেকে জবর দখল করে মাছ লুটের অভিযোগ কমলগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের উদ্যোগে বঙ্গমাতার জন্মবার্ষিকী পালিত কমলগঞ্জে এক বৃদ্ধের মৃত্যু নিয়ে ধুম্রজাল বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবর্ষ গ্রন্থমালায় প্রকাশিত বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশের চা শিল্প

জুড়ী উপজেলা চেয়ারম্যান মোঈদ ফারুকের বিরুদ্ধে তদন্ত ২ জুলাই

  • বুধবার, ১ জুলাই, ২০২০
  • ১৭৬ বার পড়া হয়েছে

এইবেলা ডেস্ক ::

মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলার বিতর্কিত সেই উপজেলা চেয়ারম্যান এমএ মোঈদ ফারুকের বিরুদ্ধে পোলট্রি খামারে হামলা, ভাঙচুর ও লুটপাট, ধান কাটার কম্বাইন্ড হারভেস্টার মেশিনের যন্ত্রপাতি ভাঙচুর এবং করোনা পরিস্থিতিতে বিশাল গণজমায়েত সৃস্টি করার দায়ে মন্ত্রণালয়ে পাঠানো তাঁর কারণ দর্শানোর জবাব সন্তোষজনক না হওয়ায় তাঁর বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু হচ্ছে। সরকারের মাঠ প্রশাসনের সর্বোচ্চ কর্মকর্তা, অতিরিক্ত সচিব, সিলেট বিভাগীয় কমিশনার মোঃ মশিউর রহমান এনডিসি ০২ জুলাই বৃহস্পতিবার সরেজমিন এই তদন্ত করবেন।

২১ জুন সিলেট বিভাগীয় কমিশনার মোঃ মশিউর রহমান এনডিসি স্বাক্ষরিত একটি চিঠি উপজেলা চেয়ারম্যান এম এ মোঈদ ফারুকের কাছে পাঠানো হয়। সেই চিঠির প্রেক্ষিতে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এম এ মোঈদ ফারুকের বিরুদ্ধে ১৮ মে স্থানীয় সরকার বিভাগের সূত্রোল্লিখিত স্মারকে উল্লিখিত অভিযোগ/অপরাধের বিষয়ে ২ জুলাই বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় উপজেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে সরেজমিন তদন্ত করবেন সিলেট বিভাগীয় কমিশনার।

উপজেলা চেয়ারম্যান মোঈদ ফারুকের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগের তদন্ত প্রসঙ্গে ২৮ মে সিলেট বিভাগীয় কমিশনার কার্যালয়ের স্থানীয় সরকার শাখার পরিচালক মোঃ ফজলুল কবীর স্বাক্ষরিত একটি চিঠি উপজেলা চেয়ারম্যানকে প্রেরণ করা হয় এবং উক্ত অভিযোগ/ অপরাধের বিষয়ে তাঁর আর কোন বক্তব্য থাকলে লিখিতভাবে দালিলিক প্রমাণাদিসহ বিভাগীয় কমিশনার বরাবরে দাখিল করার জন্য বলা হয়েছিলো। এর আগে ৫ মে জেলা প্রশাসক মৌলভীবাজার এর স্মারকের সূত্র ধরে উপজেলা চেয়ারম্যানকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেন স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়। এরই প্রেক্ষিতে উপজেলা চেয়ারম্যান মন্ত্রণালয়ে তাঁর জবাব পাঠান। কিন্তুু মন্ত্রণালয়ে পাঠানো তাঁর কারণ দর্শানোর জবাব সন্তোষজনক না হওয়ায় তাকে স্বীয় পদ থেকে অপসারণের লক্ষ্যে তদন্ত প্রতিবেদন প্রেরণের জন্য ১৮ মে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগের (উপজেলা-২ শাখা) উপসচিব মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম স্বাক্ষরিত একটি চিঠি সিলেট বিভাগীয় কমিশনারকে প্রেরণ করা হয়।

স্থানীয় সরকার বিভাগ, জেলা প্রশাসক মৌলভীবাজার চিঠির সূত্রে জানা যায়, গত ১ মে রাত ১০ টায় মদ্যপ অবস্থায় জুড়ী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এম এ মোঈদ ফারুকের নেতৃত্বে একটি সংঘবদ্ধ দল উপজেলার পশ্চিম জুড়ী ইউনিয়নের আমতৈল গ্রামে অবস্থিত “বন্ধু পোলট্রি ফার্ম” এ বেআইনীভাবে হামলা, ভাংচুর ও লুটপাট করে তান্ডবলীলা চালায়। এসময় বাঁধা দিলে ফার্মের মালিক দীনবন্দু সেনকে শারীরিকভাবে লাঞ্চিত করা হয়। এতে খামার মালিকের আর্থিক, শারীরিক ও মানসিক ক্ষতি সাধন হয়। এছাড়া স্থানীয় ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি শাহজাহান মিয়ার বাড়িতে থাকা প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে প্রাপ্ত ধান কাটার হারভেস্টার মেশিনের যন্ত্রপাতি ভাংচুর, লুটপাট করা হয়। হামলার ঘটনায় বিশাল গণজমায়েত করে করোনা ভাইরাস প্রাদুর্ভাবের সংকটময় মুহুর্তে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির চরম অবনতি ঘটানো হয়। এসব অভিযোগ/অপরাধের কারণে কেন তাঁকে (উপজেলা চেয়ারম্যান) উপজেলা পরিষদ আইন-১৯৯৮ (সংশোধিত-২০১১) এর ১৩ ধারা অনুযায়ী কেন তাঁকে স্বীয় পদ হতে অপসারণ কার্যক্রম শুরু করা হবে না মর্মে কারণ দর্শানো হয়। সেই চিঠির প্রেক্ষিতে গত ১২ মে উপজেলা চেয়ারম্যান মোঈদ ফারুক স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে কারণ দর্শানোর জবাব দাখিল করেন।

কিন্তুু মন্ত্রণালয়ে পাঠানো তাঁর কারণ দর্শানোর জবাব অসন্তোষজনক বলে প্রমাণিত হয়। এমতাবস্থায় উপজেলা চেয়ারম্যান মোঈদ ফারুক এর বিরুদ্ধে আনীত অপরাধের কারণে উপজেলা পরিষদ আইন-১৯৯৮ (সংশোধিত ২০১১) এর ১৩ ধারা অনুযায়ী তাঁকে তাঁর স্বীয় পদ হতে অপসারণের লক্ষ্যে উপজেলা পরিষদের সদস্য ও মহিলা সদস্যদের (অপসারণ, অনাস্থা ও পদ-শুন্যতা) বিধিমালা, ২০১৬ অনুযায়ী তদন্ত প্রতিবেদন প্রেরণের জন্য নির্দেশনা দেয়া হয় সিলেট বিভাগীয় কমিশনার মো. মশিউর রহমান এনডিসিকে।

এদিকে উপজেলা চেয়ারম্যান মোঈদ ফারুককে প্রধান আসামীসহ আরো ১২ জনকে অভিযুক্ত করে পোলট্রি খামারে হামলা, ভাঙচুর ও লুটপাটের ঘটনায় জুড়ী থানায় মামলা দায়ের করেন খামার মালিক দীনবন্ধু সেন।

এ ব্যাপারে সিলেট বিভাগীয় কমিশনার মো. মশিউর রহমান এনডিসি জানান, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো চিঠি ইতোমধ্যে পেয়েছি। বৃহস্পতিবার উক্ত ঘটনার সরেজমিন তদন্ত করে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে প্রতিবেদন পাঠাবো। এরপর মন্ত্রণালয় তাঁর বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।#

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৫ - ২০২০
Theme Customized By BreakingNews