পৌর নির্বাচন : ওয়ার্ড পরিক্রমা- ০১ : পরিবর্তনের ইঙ্গিত ভোটারদের পৌর নির্বাচন : ওয়ার্ড পরিক্রমা- ০১ : পরিবর্তনের ইঙ্গিত ভোটারদের – এইবেলা
  1. admin@eibela.net : admin :
সোমবার, ০৮ অগাস্ট ২০২২, ০৮:১৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
জুলাই মাসে ৬৩২টি সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৭৩৯ ও আহত ২০৪২ জন  বড়লেখায় সামাজিক সম্প্রীতি কমিটির সভা বড়লেখায় বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ ৭০ পরিবারে ঢেউটিন বিতরণ নিম্নতম মজুরীর দাবিতে লংলা ভ্যালীর ৩৪ চা বাগানে আন্দোলন কর্মসূচি ঘোষণা কুলাউড়ায় মাছের সাথে শত্রুতা! কমলগঞ্জে মনু-দলই ভ্যালীতে শ্রমচুক্তি বিলম্বিত হবার প্রতিবাদে সভা কুড়িগ্রামে পেট্রোল পাম্পকে জরিমানা বড়লেখা নারীশিক্ষা একাডেমী কলেজে বড়লেখা ফাউন্ডেশন ইউকে’র মতবিনিময় ঘাটতি সমন্বয়ের নামে আইএমএফ’র শর্ত মানতে জ্বালানী তেলের দাম বৃদ্ধি : মেনন জ্বালানী তেলের মূল্যবৃদ্ধিতে ক্ষোভ, কমলগঞ্জে কাঁচা মরিচের দামে দিশেহার মানুষ

পৌর নির্বাচন : ওয়ার্ড পরিক্রমা- ০১ : পরিবর্তনের ইঙ্গিত ভোটারদের

  • বৃহস্পতিবার, ৩১ ডিসেম্বর, ২০২০
বিশেষ প্রতিনিধি ::
আগামী ১৬ জানুয়ারী কুলাউড়া পৌরসভার নির্বাচন। বিহালা, সোনাপুর, সাদেকপুর ও টিটিডিসি এরিয়া নিয়ে ১নং ওয়ার্ড। প্রায় ২ হাজার ভোটার রয়েছেন এ ওয়ার্ডে। এ-গ্রেড মানের পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডে কাঙ্খিত উন্নয়ন হয়নি বলে অভিমত স্থানীয়দের। বিশেষ করে অনেকটা অবহেলিত অবস্থায় রয়েছে এ ওয়ার্ডের বিহাল, সাদেকপুর ও সোনাপুর এলাকা।
আসন্ন নির্বাচনে এ ওয়ার্ডে ৩ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন। তাঁরা হলেন, বর্তমান কাউন্সিলর লোকমান আলী, সাবেক কাউন্সিলর ইউনুছ মিয়া এবং নতুন মুখ নেছার আহমদ। প্রতীক বরাদ্ধের পর থেকেই প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারণা বেশ জমে উঠেছে। পোষ্টার, লিফলেট নিয়ে প্রার্থীদের পদচারনা আর মাইকের প্রচারনায় সরগরম পুরো এলাকা।
সরেজমিন এলাকা ঘুরে জানা যায়, ওয়ার্ডের বিভিন্ন দোকানগুলোতে চলছে নানা ধরনের বাক-বিতন্ডা। কেউ বলছেন অমুক জিতবে তো কেউ বলছেন না হমুক। কেউবা পানের পিক ফেলে মুখ মুছতে মুছতে বলছেন, নাহ! গতবার হমুকের অবস্থা ভাল ছিল, এবার আর তিনি নেই। এ নিয়ে অনেক সময় ছোট-খাটো ঝগড়াজাটিও হয়। তবে তা নিজেদের মধ্যে সীমবদ্ধ থাকে। এভাবেই কাঁক ডাকা ভোর থেকে শুরু করে গভীর রাত পর্যন্ত সরগরম থাকে পাড়ার মুড়ের দোকানগুলো। আর প্রার্থীরা ঘুরে ঘুরে বিভিন্ন বাসা-বাড়ির পাশাপাশি স্টলে বসা লোকদের সাথে কুশল বিনিময়, ভোট ও দোয়া চেয়ে নিচ্ছেন। তাতে বেজায় খুশি স্টল মালিকেরাও। একদিকে বেড়েছে বেঁচাকেনা, অন্যদিকে বাড়তে শুরু করেছে ভোটারদের কদর।
স্থানীয়দের মতে, বিগত ২৪ বছর থেকে তাদের ওয়ার্ডটি অবহেলিত। প্রত্যেক বারই তারা প্রার্থীদের পরিবর্তন করছেন। কিন্তু কাঙ্খিত উন্নয়নের দেখা পাচ্ছেন না। এ-গ্রেড পৌরসভা হওয়ার পরও তারা প্রাপ্য নাগরিক সেবা থেকে বঞ্চিত রয়েছেন। রাস্তাঘাট, ড্রেন, কালভার্ট, বিদ্যুৎ সমস্যায় জর্জড়িত এ ওয়ার্ডটি।
গত নির্বাচনেও প্রার্থী পরিবর্তন করে লোকমান আলীর মাধ্যমে ওয়ার্ডের লোকজন আলোকিত হতে চেয়েছিলেন। কিন্তু না! তিনিও মানুষের কাঙ্খিত সেবার ধারকাছে যেতে পারেননি। এলাকার রাস্তাঘাট, ড্রেন, কালভার্ট এবং বিদ্যুৎ সমস্যার সমাধানে লক্ষনীয় কোন ভূমিকা রাখতে পারেন নি। যারফলে এবারও মানুষের মুখে পরিবর্তনের সুর।
এদিকে সাবেক কাউন্সিলর ইউনুছ মিয়া বিগত দিনে নির্বাচিত হয়েও এলাকার জন্য তেমন কোন ভূমিকা রাখতে পারেননি। যারকারনে বিগত দিনে ভোটাররাও তাদের রায় সেভাবে দিয়েছেন। মধ্যখানে দীর্ঘদিন তিনি অনেকটা নিরব ছিলেন। এবারও তিনি প্রার্থী হয়ে ভোটারদের দ্বারে দ্বারে গিয়ে বিভিন্ন প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন। কিন্তু ভোটারদের চোঁখ আরও নতুনের দিকে।
অপরদিকে জনগনের প্রতিনিধি হয়ে এবার এ ওয়ার্ডে প্রথম বারের মতো প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন বিশিষ্ট ব্যবসায়ী নেছার আহমদ। উচ্চতর লেখাপড়া করে কোন চাকুরীতে না গিয়ে দীর্ঘদিন থেকে এলাকার মানুষের সুখে-দু:খে পাশে আছেন। সম্প্রতি এলাকার বৃহৎ বিদ্যুৎ সমস্যা সমাধানে অগ্রনি ভূমিকা রাখায় তিনি আজ মানুষের মুখে মুখে। কখনও জনপ্রতিনিধিত্ব করার মন-মানসিকতা ছিলনা। কিন্তু পিছিয়ে পড়া এ ওয়ার্ডের মানুষের তীব্র দাবির প্রেক্ষিতে তিনি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন।
“দূর্নীতি ও বৈষম্যমুক্ত উন্নয়ন চাই, জনগনের প্রতিনিধি চাই” তাঁর এই স্লোগানটি এলাকার ভোটারদের মধ্যে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। প্রতিটি এলাকায় পৃথক পৃথকভাবে উঠান বৈঠক করে বেশ সাড়া পেয়েছেন। তাকে নিয়েই অবহেলিত এই ওয়ার্ডের লোকজন নতুন স্বপ্ন দেখছেন। তিনিও এলাকার মানুষের অধিকার আদায়ে বদ্ধপরিকর ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। স্থানীয় লোকজনও মনে করছেন তাকে দিয়েই তাদের কাঙ্খিত লক্ষে পৌছানো সম্ভব হবে…

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৫ - ২০২০
Theme Customized By BreakingNews