শমশেরনগর-কুলাউড়া সড়কে ধীরগতিতে চলছে উন্নয়ন কাজ দুর্ভোগ চরমে শমশেরনগর-কুলাউড়া সড়কে ধীরগতিতে চলছে উন্নয়ন কাজ দুর্ভোগ চরমে – এইবেলা
  1. admin@eibela.net : admin :
মঙ্গলবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২২, ০৮:০৭ অপরাহ্ন
ভর্তি বিজ্ঞপ্তী

কুলাউড়া উপজেলা ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নবীন চন্দ্র সরকারি মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ে ২০২৩ শিক্ষা বর্ষের ভর্তি বিজ্ঞপ্তী। ভর্তি জন্য বিদ্যালয় চলাকালীন সময়ে অফিস থেকে ফরম সংগ্রহ ও বিস্তারিত জানার অনুরোধ করা হইলো। প্রধান শিক্ষক

শমশেরনগর-কুলাউড়া সড়কে ধীরগতিতে চলছে উন্নয়ন কাজ দুর্ভোগ চরমে

  • শনিবার, ৫ ফেব্রুয়ারী, ২০২২

কমলগঞ্জ (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি::

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে উপজেলার শমশেরনগর-কুলাউড়া সড়কের ধীরগতিতে চলমান উন্নয়ন কাজে শমশেরনগর বিমান বাহিনী ইউনিট সংলগ্ন রাস্তার নির্দিষ্ট স্থানে প্রতিনিয়ত দেবে যাচ্ছে মালামাল বোঝাই ট্রাক। সড়ক ও জনপথের অধীনস্থ এই সড়কের অর্ধকিলোমিটার স্থানে পিচঢালা ভেঙ্গে ফেলার পর থেকে গত দেড়মাস যাবত স্থানটিতে প্রতিনিয়ত ট্রাক দেবে যাওয়ার ঘটনা ঘটছে। গত শুক্রবার সন্ধ্যা থেকে বৃষ্টিতে আবারও মালবোঝাই ট্রাক দেবে যাওয়ায় সড়কের দু’পাশে যানবাহন আটকা পড়ে ও দীর্ঘ লাইনের সৃষ্টি হয়।

সরেজমিনে দেখা যায়, ভাঙ্গাচুরা সড়কের দু’পাশে মাটির স্তুপ ফেলে রাখায় বৃষ্টির কারণে আরও দুর্ভোগ সৃষ্টি হয়েছে। বৃষ্টিপাতের কারণে পিচঢালা উঠানো সড়কটি আরও দুর্বল হয়ে পড়ে। সড়কের শমশেরনগর বিমান বাহিনী ইউনিট সংলগ্ন রেলগেটের পূর্ব পাশে ঠিকাদারের গাফিলতির কারণে কয়লাবাহী ট্রাকগুলো দেবে যাওয়ার পর যানবাহন আটকা পড়ছে।

জানা যায়, শমশেরনগর-কুলাউড়া সড়কের রেলগেট সংলগ্ন প্রায় অর্ধকিলোমিটার জায়গা সংস্কারের জন্য কাজ পান সিলেটের ঠিকাদার জামিল ইকবাল। তিনি সড়কের ওই স্থান ভেঙ্গে পিচঢালা তুলে ফেলেন। গত দেড়মাস সময় ধরে পিচঢালা তুলে রাখলেও আর কোন কাজ করেননি ফলে ধুলোবালিতে পথচারীদের দুর্ভোগ হচ্ছে আবার পাথর কিংবা কয়লা বোঝাই ট্রাক এসেই প্রতিনিয়ত দেবে যাচ্ছে। এতে যানচলাচল ও যাত্রী সাধারণের চলাচলে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

শ্রীমঙ্গল-শমশেরনগর ও কুলাউড়া বাস মিনিবাস চালক সমিতির ম্যানেজার জুলহাস আহমেদ, সিএনজি অটো চালক বিল্লাল মিয়া, মোটরসাইকেল আরোহী আলমগীর হোসেন বলেন, এভাবে প্রতিনিয়ত সড়কে মাল বোঝাই ট্রাকের চাকা দেবে যায়। পরে অন্যান্য যানবাহন কিছু সময় বন্ধ থাকে এবং পাশ দিয়ে চলাচলের ব্যবস্থা করা হলেও ঝুঁকি নিয়ে সে স্থান অতিক্রম করতে হয়। ঠিকাদার বা কর্তৃপক্ষের কারো মাথাব্যাথা নেই।

এ ব্যাপারে জানতে চেয়ে ঠিকাদার জামিল ইকবালের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগের কয়েক দফা চেষ্টা করেও ফোন রিসিভ করেননি।

সড়ক ও জনপথ বিভাগের মৌলভীবাজার এর নির্বাহী প্রকৌশলী মো. জিয়া উদ্দীন বলেন, এই কাজটি চলমান আছে। দ্রুত সময়েই কাজ সম্পন্ন হবে। তবে বৃষ্টির কারণে হয়তো কিছুটা দুর্ভোগের সৃষ্টি হয়েছে।#

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো সংবাদ পড়ুন
সুরমা ব্রিকস্, ঢুলিপাড়া (মৈশাজুরী) কুলাউড়া, মৌলভীবাজার।
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৫ - ২০২০
Theme Customized By BreakingNews