বড়লেখা উপজেলার দু’ভাইসহ ৩ মানবতাবিরোধী অপরাধীর রায় বৃহস্পতিবার বড়লেখা উপজেলার দু’ভাইসহ ৩ মানবতাবিরোধী অপরাধীর রায় বৃহস্পতিবার – এইবেলা
  1. admin@eibela.net : admin :
সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ০৮:৫৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
কমলগঞ্জে বিনা ধান-২৫ এর পরীক্ষামূলক চাষাবাদে বাম্পার ফলন কমলগঞ্জে গলায় ফাঁস দিয়ে চা শ্রমিকের আত্মহত্যা কুলাউড়া ইউনিয়ন ওয়াটসান কমিটির ওয়াশ বিষয়ক ওরিয়েন্টেশন কুড়িগ্রামে সাপের কামড়ে প্রাণ গেলো কৃষকের   রাজারহাটে বাল্য বিবাহ বন্ধে লোকসংগীত ও পথ নাটক কুলাউড়া পৌরসভার ২য় মেধাবৃত্তি পরীক্ষার পুরস্কার বিতরণ বৃহত্তর সিলেট জেলা অনলাইন প্রেসক্লাবের ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত কুলাউড়ায় ট্রেনে কাটা পড়ে অজ্ঞাত নারীর মৃত্যু নিহত ওসি মোস্তাফিজের স্মৃতিতে নির্মিত গোলঘর ‘প্রেরণা’র উদ্বোধন করলেন প্রতিমন্ত্রী শফিক চৌধুরী এমপি মনু নদীর চাতলাঘাটে আইন অমান্য করে বালু উত্তোলন : বিপর্যস্ত হচ্ছে পরিবেশ

বড়লেখা উপজেলার দু’ভাইসহ ৩ মানবতাবিরোধী অপরাধীর রায় বৃহস্পতিবার

  • মঙ্গলবার, ১৭ মে, ২০২২

এইবেলা ডেস্ক :: মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার দুই ভাইসহ তিনজনের বিরুদ্ধে একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলার রায় আগামী বৃহস্পতিবার। মঙ্গলবার বিচারপতি মো. শাহিনুর ইসলামের নেতৃত্বাধীন তিন বিচারকের আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল রায়ের ওই দিন ঠিক করে দিয়েছেন।

যুক্তিতর্ক শুনানি শেষে গত ১২ এপ্রিল এ মামলাটি ঘোষণার জন্য অপেক্ষমাণ রেখেছিলেন আদালত। রাষ্ট্রপক্ষে এ মামলার শুনানি করেন প্রসিকিউটর মোখুলেসুর রহমান বাদল ও সাবিনা ইয়াসমিন খান মুন্নি।

প্রসিকিউটর মুন্নি বলেন, এ মামলাটি আজ আদালতের কার্যতালিকায় এলে রায় ঘোষণার জন্য ১৯ মে দিন ধার্য করে ট্রাইব্যুনাল।

মামলার আসামিরা হলেন- আব্দুল মান্নান ওরফে মনাই, আব্দুল আজিজ ওরফে হাবুল এবং তার ভাই আব্দুল মতিন। তাদের মধ্যে একজন পলাতক, বাকি দুইজন গত ৬ বছর ধরে কারাগারে রয়েছেন।

আসামিদের মধ্যে মনাইয়ের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী এম সারোয়ার হোসেন, হাবুলের পক্ষে আব্দুল সাত্তার পালোয়ান। হাবুলের ভাই পলাতক আব্দুল মতিনের পক্ষেও রাষ্ট্রনিযুক্ত আইনজীবী হিসেবে আব্দুস সাত্তার পালোয়ানই শুনানি করেন।

একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধের সময় মৌলভীবাজার এলাকায় অপহরণ, নির্যাতন, লুণ্ঠন, অগ্নিসংযোগ, ধর্ষণ, হত্যা গণহত্যার মত যুদ্ধাপরাধের ৫ ঘটনায় তাদের জড়িত থাকার অভিযোগ আনা হয়েছে এ মামলায়।

ট্রাইব্যুনালের তদন্ত সংস্থা বলছে, আজিজ ও মতিন ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের সঙ্গে ভারতে মুক্তিযুদ্ধের প্রশিক্ষণ নেন। প্রশিক্ষণ শেষে পালিয়ে বড়লেখায় এসে তারা হানাদার বাহিনীর কাছে আত্মসমর্পণ করেন এবং রাজাকার বাহিনীতে যোগ দেন। তখন তাদের সঙ্গে যোগ দেন মান্নান। ২০১৬ সালের ১ মার্চ গ্রেফতার হওয়ার আগে আব্দুল আজিজ বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে জড়িয়ে পড়েন। আর পলাতক মতিন জামায়াতে ইসলামীর রাজনীতি করেন।

আসামি মান্নান ওরফে মনাই ১৯৭১ সালে জামাতের তখনকার ছাত্র সংগঠন ইসলামী ছাত্রসংঘের রাজনীতিতে জড়িত ছিলেন বলে তদন্ত সংস্থার ভাষ্য। মুক্তিযুদ্ধের সময় তিনি বড়লেখা থানা শান্তি কমিটির সদস্য হন এবং রাজাকার বাহিনীতে যোগ দেন। ২০১৬ সালের ১ মার্চ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা তাকে গ্রেফতার।#

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২২ - ২০২৪
Theme Customized By BreakingNews