রাজনগরে প্রতারকের খপ্পরে নারী রাজনগরে প্রতারকের খপ্পরে নারী – এইবেলা
  1. admin@eibela.net : admin :
রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ০১:৫৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
ত্রাণ বিতরণে অনিয়ম হলে কঠোর ব্যবস্থা : ইউএনও, বড়লেখা কুলাউড়ায় পানীবন্দি মানুষদের মাঝে জামায়াতের উপহার! কুলাউড়ায় ৫ ইউনিয়নে বন্যার্তদের মাঝে খাদ্য সহায়তা প্রদান কুলাউড়ায় রেললাইনে পানি, ট্রেন চলাচলে নতুৃৃন নির্দেশনা বড়লেখায় আশ্রয়কেন্দ্রে ছুটছে দুর্গতরা, ত্রাণের জন্য হাহাকার বড়লেখায় ৭ হাজার গ্রাহকের সংযোগ বিচ্ছিন্ন, পানিবন্দী মানুষের চরম ভোগান্তি বড়লেখায় ঢলের পানিতে ডুবে স্কুলছাত্রীর মৃত্যু স্পেনে যুবলীগ কাতালোনিয়া শাখার উদ্যোগে ঈদ পুনর্মিলনী ও আলোচনা মৌলভীবাজারে বন্যার পানিতে ডুবে ২ জনের মৃত্যু কুলাউড়ায় বন্যা আশ্রয় কেন্দ্র পরিদর্শণ করলেন মৌলভীবাজারের জেলা প্রশাসক

রাজনগরে প্রতারকের খপ্পরে নারী

  • শুক্রবার, ১০ মার্চ, ২০২৩

কুলাউড়া (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি :: মৌলভীবাজারের রাজনগর উপজেলার সোনালী ব্যাংকের নিচ থেকে টাকা দ্বিগুণ করার কথা বলে ০৯ মার্চ বৃহস্পতিবার ব্যাংক থেকে উত্তোলিত ২৮ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছে প্রতারক। উপজেলার দক্ষিণ খারপাড়া গ্রামের খেলা বেগম (৫০) প্রতারণার শিকার হয়ে গত দু’দিন থেকে বিলাপ করছেন।

জানা যায়, সৌদিআরব থেকে খেরা বেগমের ছেলে ব্যাংকের মাধ্যমে ২৮ হাজার টাকা পাঠান। বৃগস্পতিবার সোনালী ব্যাংকের রাজনগর শাখা থেকে টাকা তুলেন খেলা বেগম। টাকা নিয়ে ব্যংকের নিচে আসতেই এক ব্যক্তি খেলা বেগমের সাথে কথা বলে কোশল বিনিময় করে। এসময় যে তার আধ্যাত্বিকতার কথাও বলে। টাকায় ফু দিলেই দ্বীগুণ হয়ে যায় টাকা বলে লোভ দেখায়। এভাবে সে অনেককেই টাকা দ্বিগুণ করে দিয়েছে। গ্রামের সহজসরল খেলা বেগম তার প্রলোভনে নিজের ছেলের কষ্টের রোজগার করা টাকা তুলেদেন ওই প্রতারকের হতে। টাকার ব্যাগে ফু দিয়ে খেলা বেগমকে বাড়িতে চলে যেতে বলে। বাড়ি না গিয়ে ব্যাগটি যেন না খোলেন। তার কথায় বিশ্বাস রেখে বাড়িতে ফিরে খোলেন টাকার ব্যাগটি। কিন্তু টাকা দ্বিগুণ হওয়া দূরের কথা মূল টাকাই তো ব্যাগে নেই। বিষয়টি দেখে খেলা বেগম বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েন। কান্না আর বিলাপ করতে থাকেন। বারবার বলতে থাকেন যে ছেলের কষ্টের রোজগার করা টাকা তুলে দিলেন প্রতারকের হাতে।

খেলা বেগমের দেবর খালেছ মিয়া জানান, টাকা দ্বিগুন করে দেয়ার লোভ দেখিয়ে প্রতারক টাকা নিয়ে গেছে। ব্যাংকের নিচ তলায় এনজিও সংস্থা আশার ও টিএমএসএস কার্যালয়ের সামনে লাগানো সিসি ক্যামেরা খোজ করেন। কিন্তু সিসি ক্যামেরা সেটিং ঠিক না থাকায় প্রতারকের ছবি দেখা যায়নি। তারা বিষয়টি রাজনগর সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যানকে জানিয়েছেন।

এ ব্যাপারে রাজনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বিনয় ভূষণ রায় জানান, ঘটনা শুনিনি। আমরা যাচাই বাছাই করছি। অনেক সময় পারিবারিক বিভিন্ন ঘটনার কারণে এভাবে অনেকে বলে থাকেন। এব্যাপারে কোন অভিযোগও করেননি কেউ।#

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২২ - ২০২৪
Theme Customized By BreakingNews