কমলগঞ্জে চা বাগানে নিরিখ বাড়ানোর প্রতিবাদে ক্ষুব্ধ নারী শ্রমিকরা কমলগঞ্জে চা বাগানে নিরিখ বাড়ানোর প্রতিবাদে ক্ষুব্ধ নারী শ্রমিকরা – এইবেলা
  1. admin@eibela.net : admin :
মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ০৯:৩৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
ব্যাড বয় হয়ে পর্দায় আসছেন সীমান্ত রেমালের তান্ডব : ১০ জনের মৃতু, ৩৫ হাজার ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত, বিদ্যুৎহীন ২ কোটি ৩৫ লাখ গ্রাহক সাধারণ সম্পাদকের দায়ীত্ব ফিরে পেলেন ডিপজল আত্রাইয়ের প্রতিটি বাজারে পাওয়া যাচ্ছে সুস্বাদু লিচু দামে চড়া ভালো অভিনেত্রী হয়ে একাকিত্বে জীবন কাটাতে চাইনি – প্রীতি জিনতা কুলাউড়ায় বিএনপির তিন নেতা কারাগারে কুলাউড়ার সীমান্তবর্তী শরীফপুরে ঝড়ে গাছ পড়ে ৩ সন্তানের জননীর মৃত‌্যু কুলাউড়ার সদপাশা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিদায় সংবর্ধনা কমলগঞ্জে মণিপুরি কমিউনিটি বেইজড ট্যুরিজম বিষয়ক মতবিনিময় ফুলবাড়ীর মানুষের দাবি বাংটুর ঘাটে ব্রিজ চাই

কমলগঞ্জে চা বাগানে নিরিখ বাড়ানোর প্রতিবাদে ক্ষুব্ধ নারী শ্রমিকরা

  • সোমবার, ১৪ আগস্ট, ২০২৩

কমলগঞ্জ (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি ::মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার আলীনগর চা বাগানে নিরিখ (পাতি উত্তোলন) বাড়ানোর প্রতিবাদে ক্ষুব্দ হয়ে উঠছেন নারী শ্রমিকরা। ১৮ কেজি পাতি উত্তোলনে নিরিখ ছিল। বর্তমানে কর্তৃপক্ষ ২০ কেজিতে নিরিখ করার প্রতিবাদে সভা করে লিখিতভাবে প্রতিবাদ জানানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। গত রোববার (১৩ আগষ্ট) সন্ধ্যা ৭ ঘটিকায় আলীনগর চা বাগানের মহামায়া মন্দির প্রাঙ্গনে শ্রমিকরা প্রতিবাদ সভা করেন।

চা শ্রমিকরা জানান, সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত চা বাগানের টিলা-টক্করে দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে পাতি উত্তোলন করতে হয় নারী শ্রমিকদের। সারাদিন অক্লান্ত পরিশ্রম করে কেউ নিরিখ পুরো করে আবার কেউ নিরিখ পুরো করতে পারেন না। নিরিখের চেয়ে ১ কেজি কম হলে ১০ টাকা কেটে রাখা হয়। আর এক কেজি বেশি তুললে দ্বিগুণ দেয়ার কথা থাকলেও দেয়া হয় মাত্র ৪ টাকা। এরই মধ্যে চা বাগান ম্যানেজমেন্ট ১৮ কেজির স্থলে ২ কেজি বাড়িয়ে ২০ কেজিতে নিরিখ করে নারী শ্রমিকদের উপর চাপ বৃদ্ধি করেছে। এর প্রতিবাদে গত রোববার সন্ধ্যায় আলীনগর চা বাগানের নারী নেত্রী গীতা গোয়ালার সভাপতিত্বে প্রতিবাদ সভা অনুষ্টিত হয়। সভায় বক্তব্য রাখেন শুকরমনি, দয়াশংকর কৈরী, উসমান আলীসহ চা বাগানের নারী ও পুরুষ শ্রমিকরা।

তারা বলেন, চা শ্রমিকদের দৈনিক মজুরি মাত্র ১৭০ টাকা। তাতে নিরিখে ১৮ কেজি পাতি উত্তোলন করলে প্রতি কেজি পাতির মূল্য দাঁড়ায় ৯ টাকা পয়তাল্লিশ পয়সা। শ্রম আইনে রয়েছে অতিরিক্ত উত্তোলনে দ্বিগুণ মজুরি দেয়ার কথা। তাতে এক কেজি পাতি বেশি উত্তোলন করলে যেখানে ১৮ টাকা পাওয়ার কথা সেখানে নারীদের ঠকিয়ে দেয়া হয় মাত্র ৪ টাকা। বর্তমানে আবার ২০ কেজি নিরিখ করে নারীদের উপর শোষণের মাত্রা বৃদ্ধি করা হয়েছে এবং পূর্বের ১৮ কেজিতে নিরিখ বহাল রাখার বিষয়ে তারা দাবি জানান।#

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২২ - ২০২৪
Theme Customized By BreakingNews