মানসিক ভারসাম্যহীন মেয়ের ইটের আঘাতে মায়ের মৃত্যু মানসিক ভারসাম্যহীন মেয়ের ইটের আঘাতে মায়ের মৃত্যু – এইবেলা
  1. admin@eibela.net : admin :
রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২২, ০৭:১১ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
সৌদিতে ভাল চাকরির প্রলোভনে ‘প্রতারণা’, বড়লেখায় ৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা কুলাউড়ায় বাঁশ কাটার অপরাধে ১ জনের বিরুদ্ধে মামলা কমলগঞ্জে ছাদ থেকে পড়ে একজনের মৃত্যু বড়লেখায় আর্ন্তজাতিক প্রতিবন্ধী দিবসে র‌্যালি, সভা ও হুইল চেয়ার বিতরণ প্রতিবন্ধি দিবস : শতাধিক প্রতিবন্ধি ব্যক্তি কর্মক্ষম হয়ে উঠার গল্প কুলাউড়ায় সরকারি রাস্তা জবরদখল করে সীমানা প্রাচীর নির্মাণের অভিযোগ কানাডায় ১১ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করেছে সরগরম মিউজিক একাডেমি কুলাউড়ায় মিছিরা খাতুন একাডেমি নামক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের উদ্বোধন কুড়িগ্রামে ৩৩ কেজি গাঁজাসহ আটক-১  কমলগঞ্জে আল্ট্রা ট্রেইল ম্যারাথন অনুষ্ঠিত
বেকারি ভাড়া দেয়া হবে
মৌলভীবাজার জেলার জুড়ী উপজেলা সদরে সম্পূর্ন চালু অবস্থায় একটি বড় বেকারি (৬ হাজার স্কয়ার ফুট) ভাড়া দেয়া হবে। গ্যাস, বিদ্যুৎসংযোগ, ওভেন ও তান্দুরি আছে।
যোগাযোগ- ০১৮১৯৯৭৮৫৫৫

মানসিক ভারসাম্যহীন মেয়ের ইটের আঘাতে মায়ের মৃত্যু

  • মঙ্গলবার, ২৯ ডিসেম্বর, ২০২০

এইবেলা, সুনামগঞ্জ ::

সুনামগঞ্জের জেলার দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলায় মানসিক ভারসাম্যহীন মেয়ের ইটের আঘাতে বৃদ্ধ মায়ের মৃত্যু হয়েছে।

সোমবার দিবাগত রাত ২টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। এর আগে রাত ১০টায় দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার শিমুলবাক ইউনিয়নের আক্তাপাড়া গ্রামে মেয়ের হাতে আহত হন তিনি।

নিহত শফিকুন নেছা আক্তাপাড়া গ্রামের ইস্কান্দর আলীর স্ত্রী। মেয়ে হালিমা বেগম (২২) ২ সন্তানের জননী ও ৭ মাসের অন্তঃসত্ত্বা বলে জানা গেছে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, সফিকুন নেছার মেয়ে হালিমা বেগম বছরের বেশীর ভাগ সময়ই ভারসাম্যহীন অবস্থায় থাকেন। ৩-৪ বছর আগে হালিমা বেগমকে সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জ উপজেলার কামলাবাজ গ্রামে আলী নুরের সঙ্গে বিয়ে দেয়া হয়।

বিয়ের পর বেশীর ভাগ সময়ই মানসিক ভারসাম্যহীন থাকায় হালিমা বেগম তার বাবার বাড়ি আক্তাপাড়া গ্রামে বসবাস করে আসছিলেন।

সোমবার রাত ১০টায় তার মা সফিকুন নেছা মেয়ে হালিমা বেগমের রাতের বিছানা গুছিয়ে খাবার দিতে যান। এসময় লোহার শিকলে বাঁধা হালিমা বেগম পাশে থাকা ইট দিয়ে তার মা সফিকুন নেছার মাথায় সজোরে আঘাত করেন। এতে সফিকুন নেছার মাথার মগজ থেঁতলে বেরিয়ে আসে।

তাৎক্ষণিকভাবে পরিবারের লোকজন সফিকুন নেছাকে সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে রাত ২টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

খবর পেয়ে সুনামগঞ্জ সদর থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য সফিকুন নেছার লাশ সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করেন।

দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানার ওসি কাজী মোক্তাদির হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে আইনি পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।#

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো সংবাদ পড়ুন
সুরমা ব্রিকস্, ঢুলিপাড়া (মৈশাজুরী) কুলাউড়া, মৌলভীবাজার।
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৫ - ২০২০
Theme Customized By BreakingNews