বড়লেখায় সরকারী বরাদ্দে জোরপূর্বক টিলাকেটে রাস্তা নির্মাণের অভিযোগ বড়লেখায় সরকারী বরাদ্দে জোরপূর্বক টিলাকেটে রাস্তা নির্মাণের অভিযোগ – এইবেলা
  1. admin@eibela.net : admin :
বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ০৬:০৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
কুলাউড়ায় লক্ষাধিক মানুষ পানি বন্দি, বাড়ছে পানি, বাড়ছে দুর্ভোগ! দুর্যোগ মোকাবেলায় বিশ্বে বাংলাদেশ রোলমডেল : দুর্যোগ ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী হাকালুকি হাওরপারে বন্যার অবণতি-বড়লেখায় ২৫২ গ্রাম প্লাবিত, আশ্রয় কেন্দ্রে ২২০ পরিবার, লাখো মানুষ পানিবন্দি মৌলভীবাজারে বন্যা কবলিত ৪৩২ গ্রাম, পানিবন্দি প্রায় ২ লাখ মানুষ সবার সমন্বয়ে বন্যা মোকাবেলা করতে হবে: প্রতিমন্ত্রী শফিক চৌধুরী বড়লেখায় ৫ হাজার মানুষ পানিবন্দী, আশ্রয় কেন্দ্রে আসা শুরু দুর্গতদের ফের সিলেটের পর্যটন কেন্দ্রগুলো বন্ধ ঘোষণা যৌতুকের দাবীতে বড়লেখায় ফ্রান্স প্রবাসীর স্ত্রীকে বাড়ি থেকে বের করে দিল শ্বশুর-ভাসুর আবারও সিলেট নগর পানির নিচে, ঈদ পালনে ভোগান্তি কুলাউড়ার জয়চন্ডীতে পঞ্চায়েত প্রধানের উপর হামলা: ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী

বড়লেখায় সরকারী বরাদ্দে জোরপূর্বক টিলাকেটে রাস্তা নির্মাণের অভিযোগ

  • সোমবার, ২১ জুন, ২০২১

বিশেষ প্রতিনিধি :

বড়লেখা উপজেলার পশ্চিম হাতলিয়া গ্রামে সরকারী বরাদ্দে ব্যক্তি মালিকানাধীন টিলা কেটে জোরপূর্বক রাস্তা নির্মাণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। রোববার ভুক্তভোগী জুড়ী উপজেলার গোয়ালবাড়ি গ্রামের আব্দুল খালিক ৪ ব্যক্তির বিরুদ্ধে বড়লেখা ইউএনও বরাবরে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। জোরপূর্বক ব্যক্তি মালিকানাধীন টিলা কেটে মাত্র এক পরিবারের জন্য আড়াই লাখ টাকার সরকারী বরাদ্দ প্রদানে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

লিখিত অভিযোগ ও সরেজমিনে জানা গেছে, পশ্চিম হাতলিয়া গ্রামের মৃত রজব আলীর ছেলে আব্দুল খালিক, আব্দুল মুকিত তুলাই, আব্দুল বাছিত ও আব্দুর রাজ্জাক তাদের বসতবাড়িতে যাতায়াতের রাস্তা থাকা স্বত্বেও তাদের বাড়ির সম্মুখের জুড়ী উপজেলার গোয়ালবাড়ি গ্রামের আব্দুল খালিকের মালিকানাধীন টিলা ভুমি কেটে রাস্তা নির্মাণের পায়তারা করেন। তারা দক্ষিণভাগ দক্ষিণ ইউপি চেয়ারম্যানকে প্রভাবিত করে অতিগোপনে এখানে রাস্তা তৈরীর একটি সরকারী প্রকল্প গ্রহণ করায়। সম্প্রতি ইজিপিপি প্রকল্পের আড়াই লাখ টাকা বরাদ্দ পেয়ে আব্দুল খালিক, আব্দুল মুকিত তুলাই গংরা জোরপূর্বক টিলা কেটে রাস্তা নির্মাণ শুরু করে। খবর পেয়ে ভুমি মালিক আব্দুল খালিক তাদেরকে বাধা দেন।

ভুক্তভোগী আব্দুল খালিক জানান, কোনো ধরণের যোগাযোগ ছাড়াই তারা সরকারী প্রকল্পের মাধ্যমে আমার টিলা কেটে রাস্তা নির্মাণ শুরু করে। তাদের যাতায়াতের রাস্তা রয়েছে। এদিকে তাদের একটি পরিবার ছাড়া আর কোনো পরিবার নেই। মাত্র একটি পরিবারের জন্য সরকারের এত বড় প্রকল্প দেয়া রহস্যজনক। এটি জনস্বার্থে নয়, আমার বিরাট ক্ষতির জন্য অসৎ উদ্দেশ্যে করা হচ্ছে। টিলা কাটার সময় আমার অসংখ্য গাছ কেটে লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি সাধন করা হয়েছে। আমি আপত্তি দিয়ে বন্ধ রেখেছি। আমার অগোচরে পুনরায় রাস্তা করে ফেলার আশংকা করছি।#

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২২ - ২০২৪
Theme Customized By BreakingNews