বড়লেখায় স্বামী হত্যা মামলায় স্ত্রী রিমান্ডে বড়লেখায় স্বামী হত্যা মামলায় স্ত্রী রিমান্ডে – এইবেলা
  1. admin@eibela.net : admin :
মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ০৭:৫৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
কমলগঞ্জে বিনা ধান-২৫ এর পরীক্ষামূলক চাষাবাদে বাম্পার ফলন কমলগঞ্জে গলায় ফাঁস দিয়ে চা শ্রমিকের আত্মহত্যা কুলাউড়া ইউনিয়ন ওয়াটসান কমিটির ওয়াশ বিষয়ক ওরিয়েন্টেশন কুড়িগ্রামে সাপের কামড়ে প্রাণ গেলো কৃষকের   রাজারহাটে বাল্য বিবাহ বন্ধে লোকসংগীত ও পথ নাটক কুলাউড়া পৌরসভার ২য় মেধাবৃত্তি পরীক্ষার পুরস্কার বিতরণ বৃহত্তর সিলেট জেলা অনলাইন প্রেসক্লাবের ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত কুলাউড়ায় ট্রেনে কাটা পড়ে অজ্ঞাত নারীর মৃত্যু নিহত ওসি মোস্তাফিজের স্মৃতিতে নির্মিত গোলঘর ‘প্রেরণা’র উদ্বোধন করলেন প্রতিমন্ত্রী শফিক চৌধুরী এমপি মনু নদীর চাতলাঘাটে আইন অমান্য করে বালু উত্তোলন : বিপর্যস্ত হচ্ছে পরিবেশ

বড়লেখায় স্বামী হত্যা মামলায় স্ত্রী রিমান্ডে

  • মঙ্গলবার, ২ আগস্ট, ২০২২
  • বড়লেখা প্রতিনিধি :: বড়লেখায় সিএনজি চালক ফখরুল ইসলাম হত্যা মামলার ৪ আসামীর রিমান্ড শেষ হয়েছে। ৪ দিনের রিমান্ড শেষে নিহতের স্ত্রীর পরকিয়া প্রেমিক মস্তাব উদ্দিন ওরফে মাসুমকে সোমবার বিকেলে পুলিশ আদালতে সোর্পদ করেছে। রিমান্ডে আসামীরা পুলিশকে পরিকল্পিত হত্যা ঘটনার কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছে। এদিকে আদালত নিহতের স্ত্রী দিলারা বেগমের ২ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন।

ফখরুল ইসলাম হত্যা মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই মোহাম্মদ হাবিবুর রহমান পিপিএম জানান, এ হত্যা ঘটনার রহস্য উদ্ঘাটনে মামলার এজাহার নামীয় আসামী সেলিম উদ্দিন ও কবির আহমদকে ২ দিনের, উজ্জল আহমদকে ৩ দিনের ও মস্তাব উদ্দিনকে ৪ দিনের রিমান্ডে নেয় পুলিশ। রিমান্ড শেষে আসামীদের আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। আসামীরা রিমান্ডে হত্যকান্ডের কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছে। তবে তদন্তের স্বার্থে তা প্রকাশ করা যাচ্ছে না। এদিকে মামলার প্রধান আসামী নিহতের স্ত্রী দিলারা বেগমের দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। শীঘ্রই তাকেও রিমান্ডে আনা হবে।

জানা গেছে, উপজেলার ইটাউরী গ্রামের সিএনজি অটোরিকশা চালক ফখরুল ইসলামের স্ত্রী দিলারা বেগম (৪৩) একাধিক পুরুষের সাথে পরকিয়া চালিয়ে যাচ্ছিলেন। পরপুরুষ আসক্তির কারণে দীর্ঘদিন ধরে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে পারিবারিক কলহ চলছিল। এর জেরে ২৫ জুলাই রাতে পরিকল্পিতভাবে ফখরুল ইসলামকে শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যার পর গ্রামের পরিত্যক্ত একটি বাড়ির লেচু গাছে তার লাশ ঝুলিয়ে রাখা হয়। নিহতের স্ত্রী দিলারা বেগম, তার পরকিয়া প্রেমিকরা ও মেজছেলে ঘটনাটি আত্মহত্যা বলে এলাকায় প্রচারণা চালায়। পরদিন পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে। রহস্যজনক এ মৃত্যুর ঘটনায় নিহতের বোন সুফিয়া বেগম নিহতের স্ত্রী দিলারা বেগম, মেজছেলে উজ্জল আহমদসহ ৫ জনের নাম উল্লেখ ও আরো ২-৩ জনকে অজ্ঞাত আসামী করে থানায় হত্যা মামলায় করেন। ঘটনার ২৪ ঘন্টার মধ্যে পুলিশ ৪ আসামীকে এবং পরবর্তীতে বিয়ানীবাজারের দিকে পালিয়ে যাওয়ার সময় প্রধান আসামী নিহতের স্ত্রী দিলারা বেগমকেও গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠায়।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২২ - ২০২৪
Theme Customized By BreakingNews