রাজনগরে পায়ে কলস, ড্রাম বাধা গৃহবধুর লাশ উদ্ধার রাজনগরে পায়ে কলস, ড্রাম বাধা গৃহবধুর লাশ উদ্ধার – এইবেলা
  1. admin@eibela.net : admin :
শনিবার, ০১ অক্টোবর ২০২২, ০৮:৫১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
জুড়ী ছাত্রলীগ সভাপতির হাতে এবার লাঞ্ছিত উপজেলা আ’লীগের নেতারা কমলগঞ্জে শারদীয় দুর্গোৎসব থানা পুলিশের মতবিনিময় ও পোষাক বিতরণ কমলগঞ্জে শারদীয় দুর্গোৎসব উপলক্ষে অনুদানের চেক বিতরণ বড়লেখা মাদ্রাসায় সহ-সুপার পদে নিয়োগ বাণিজ্য-ডিজি প্রতিনিধি এলেন বিমানে! জেলার শ্রেষ্ঠ প্রধান শিক্ষক ও শিক্ষিকা কুলাউড়ার কাইয়ুম ও তাহমিনা বাংলাদেশ জাসদের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত হলেন মইনুল ইসলাম শামীম কুলাউড়ায় সাংবাদিকদের সহযোগিতা চাইলেন জেলা পরিষদের সদস্য প্রার্থী আসফাক তানভীর জুড়িতে ঘনবসতি এলাকায় করাতকল এলাকাবাসীর সংবাদ সম্মেলন কমলগঞ্জে তথ্য অধিকার দিবস পালিত বড়লেখা সরকারী কলেজে খন্ডকালিন প্রভাষক নিয়োগে অনিয়মের অভিযোগ

রাজনগরে পায়ে কলস, ড্রাম বাধা গৃহবধুর লাশ উদ্ধার

  • বুধবার, ৩১ আগস্ট, ২০২২

রাজনগর প্রতিনিধি :: মৌলভীবাজারের রাজনগরে কলসে এক পা ঢুকানো। একপায়ে ড্রাম বাধা। গলা ও কোমরে বাধা অবস্থায় গৃহবধুর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

জানাযায়, পানিতে মায়ের চুল ভাসছে দেখে ছেলে চিৎকার করলে আশেপাশের লোকজন জড়ো হন। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে গৃহবধু মিনা বেগমের লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠায়।

ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার (৩১ আগস্ট) সকালে উপজেলার কামারচাক ইউনিয়নের মৌলভীচক গ্রামে। এদিকে মিনা বেগমের পরিবার এটিকে হত্যা বলে দাবি করেছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, রাজনগর উপজেলার কামারচাক ইউনিয়নের মৌলভীচক গ্রামের কলিমুল্লাহর ছেলে লেচু মিয়া ওরফে লেইছ মিয়ার সঙ্গে তার স্ত্রী মিনা বেগম (৪০) পারিবারিক কলহ চলছিল। এনিয়ে মিনা বেগম স্বামীর বাড়ি থেকে তার বাবার বাড়ি কুলাউড়া উপজেলার হাজিপুর ইউনিয়নের পাবই গ্রামে চলে যান। সেখানে বেশ কিছুদিন ছিলেন।

বিষয়টি স্থানীয় মুরব্বি ও ইউপি সদস্য মাহবুবুর রহমান মিলে মিমাংসা করে দেন ১০/১২দিন পূর্বে। বিরোধ মিটে যাওয়ায় ওই সময়ই মিনা বেগম স্বামীর বাড়ি মৌলভীচক গ্রামে চলে আসনে। কিন্তু বুধবার সকালে মিনা বেগমের ছেলে হুমায়ূন ঘুম থেকে উঠে মা কে না পেয়ে পুরো বাড়ি খোঁজে কোথাও না পেয়ে পুকুর ঘাটে গিয়ে দেখে মায়ের লাশ ভাসছে। তার চিৎকারে বাড়ির লোকজন জড়ো হন।

বিষয়টি রাজনগর থানার পুলিশকে জানালে তারা গিয়ে লাশ পুকুর থেকে উদ্ধার করে। লাশ উদ্ধারের সময় দেখা যায় এক পা একটি কলসির মধ্যে ঢুকানো। গলা ও কোমরের সঙ্গে রশি বাধা।

এতে একটি ড্রামও অপর পায়ের বাধা ছিল। পুলিশ বলছে, প্রাথমিক ভাবে এটিকে হত্যা হিসেবেই দেখছে।

লাশ উদ্ধার করার সময় স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আতাউর রহমান ও ইউপি সদস্য মো. মাহবুবুর রহমানও ছিলেন।

রাজনগর থানার পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মিনা বেগমের স্বামী লেচু মিয়া ওরফে লেইচ মিয়া ও তার মা এবং ৩ সন্তানকে থানায় নিয়ে এসেছে। এঘটনায় এখনো কোন মামলা হয়নি।

ইউপি সদস্য মো. মাহবুবুর রহমান বেলেন, মিনাবেগম ও তার স্বামীর মধ্যে পারিবারিক কলহ ছিল। সম্প্রতি বিষয়টি আমিসহ স্থানীয় মুরব্বিরা মিলে মিমাংসা করে দেন। মিনাবেগম স্বামীর বাড়িও চলে আসেন। এরই মাঝে আজেকর ঘটনা ঘটল।

রাজনগর থানার ভারপ্রাপ্ক কর্মকর্তা (তদন্ত) রতন দেবনাথ বলেন, স্বামী স্ত্রীর মধ্যে পূর্বে বিরোধ ছিল। বিষয়টি মিমাংসা হয়েগিয়েছিল। অবস্থা দেখে মনে হচ্ছে তাকে হত্যা করা হয়েছে। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে মৌলভীবাজার মর্গে পাঠিয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৫ - ২০২০
Theme Customized By BreakingNews