ফেব্রুয়ারি ২২, ২০১৬
Home » জাতীয় » রাজনগরে আ’লীগ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগের মধ্যে সংঘর্ষ ফাঁকাগুলি

রাজনগরে আ’লীগ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগের মধ্যে সংঘর্ষ ফাঁকাগুলি

এইবেলা, কুলাউড়া ২২ ফেব্রুয়ারি :: মৌলভীবাজারের রাজনগর উপজেলার টেংরা বাজারে আওয়ামী লীগ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগের দু’গ্রুপের মধ্যে গতকাল সোমবার দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। হামলাকারীরা টেংরা ইউনিয়নে ২ বার ও টেংরা ইউনিয়নের চেয়ারম্যানের বাসায় হামলা চালায়। হামলাকালে একটি দোকান ভাঙচুর করা হয়। হামলাকালে কয়েক রাউন্ড গুলির শব্দ শুনেছেন স্থানীয় লোকজন।

স্থানীয় লোকজন ও প্রত্যক্ষদর্শী সুত্রে জানা যায়, টেংরা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও টেংরা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল কাদির মোতালেব এবং উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহ্বায়ক ও টেংরা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান টিপু খানের সমর্থকদের  মধ্যে এই সংঘর্ষ বাঁধে। সকালে মোতালেব সমর্থকরা টেংরা বাজারের ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি পুত্র শিমু দাসের দোকানে হামলা চালায় এবং তাকে মারধর করে। এনিয়ে সংঘর্ষের সুত্রপাত হয়।

টেংরা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান টিপু খান অভিযোগ করেন, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি আমাকে ভোট দিলে তার ছেলে শিমু দাসের উপর হামলা চালায় মোতালেব সমর্থকরা। শিমু দাস আমার কাছে বিচারপ্রার্থী হলে মোতালেব সমর্থকরা উত্তেজিত হয়ে ২ বার ইউনিয়ন পরিষদে এবং সন্ধ্যায় আমার বাসায় হামলা চালায়। আমি বিষয়টি জেলা প্রশাসক ও পুলিশকে বিষয়টি অবহিত করি।

এদিকে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল কাদির মোতালেব অভিযোগ করেন, চেয়ারম্যান টিপু খান ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি-সেক্রেটারিদের কাছ থেকে দলীয় মনোনয়ন তাকে দেয়ার জন্য জোরপূর্বক স্বাক্ষর নিচ্ছেন। বিষয়টি ৬জন ওয়ার্ড সভাপতি-সম্পাদক রাজনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান আছকির খানের কাছে অভিযোগ করেন। বিষয়টি জানার পর চেয়ারম্যান টিপু খান তাদের সাথে দুর্ব্যবহার করেন। আমি এর প্রতিবাদ জানাই। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে চেয়ারম্যান ও তার দলবদল অস্ত্র নিয়ে গুলি করে আতঙ্ক সৃষ্টির চেষ্টা করছে।

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত টেংরা বাজারের দু’পাশে অবস্থান করছিলো। বাজারে উত্তেজনা বিরাজ করছে। খবর পেয়ে রাজনগর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) গোলাম সারওয়ার ও এসআই হিল্লোল রায়সহ পুলিশ ঘটনাস্থলে রয়েছে। তবে হামলায় আর কেউ হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।#

রিপোর্ট- বিশেষ প্রতিনিধি