মার্চ ২১, ২০১৬
Home » জাতীয় » সিলেট সদরের ৯৫ ভোট কেন্দ্রে পৌঁছে গেছে নির্বাচনী সরঞ্জাম

সিলেট সদরের ৯৫ ভোট কেন্দ্রে পৌঁছে গেছে নির্বাচনী সরঞ্জাম

এইবেলা, সিলেট, ২১ মার্চ:: সিলেট সদর উপজেলার ৮টি ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে আগামিকাল ২২ মার্চ। এসব ইউনিয়নের ৯৫টি কেন্দ্রে ভোটাররা তাদের ভোটোধিকার প্রয়োগ করবেন। ইতোমধ্যে সবক’টি কেন্দ্রে ব্যালট পেপা, বাক্স, কালি ও সিলসহ আনুসাঙ্গিক সরঞ্জাম পৗঁছানো হয়েছে। সোমবার দুপুরে সিলেট সদর উপজেলা নির্বাচন অফিস থেকে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা এসব সরঞ্জামাদি প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে নিয়ে গেছেন গেছেন বলে জানিয়েছেন সিলেট সদর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা সানজিদা আফরিন ছন্দা।

তিনি সিলেটভিউ২৪ডটকমকে জানান, প্রতিটি কেন্দ্রে ব্যালট বাক্স, ব্যালট পেপার, সিল, অমোছনীয় কালিসহ অন্যান্য সরঞ্জাম পাঠানো হয়েছে। নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরাও কেন্দ্রগুলোর দায়িত্ব নিয়েছেন।

পুলিশের পাশাপাশি মাঠে রয়েছে র‌্যাব ও বিজিবি।

প্রথম ধাপে সিলেটের সদর উপজেলার ৮টি ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। সেগুলো হচ্ছে- খাদিমপাড়া, খাদিমনগর, টুলটিকর, টুকেরবাজার, জালালাবাদ, হাটখোলা, মোগলগাঁও ও কান্দিরগাঁও ইউনিয়ন পরিষদ।

আওয়ামী লীগ-বিএনপির দলীয় প্রার্থীসহ মোট ৪৯০ জন প্রার্থী ভোট যুদ্ধে অংশ নিয়েছেন। যার মধ্যে চেয়ারম্যান পদে ৪০ জন, সংরক্ষিত মহিলা পদে ৯১ জন এবং সাধারণ সদস্য পদে ৩৫৯ জন প্রার্থী রয়েছেন।  ৮টি ইউনিয়নে মোট ভোটার রয়েছেন ২ লাখ ৭ হাজার ৩৭০ জন। যার মধ্যে পুরুষ রয়েছেন ১ লাখ ৬ হাজার ১শ’ ৫১ জন। আর মহিলা ভোটার রয়েছেন ১ লাখ ১ হাজার ২শ’ ১৯ জন। ওইসব ভোটাররা মোট ৯৫টি ভোট কেন্দ্রে গিয়ে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন।

উপজেলার ৮ ইউনিয়নের ভোটকেন্দ্রগুলোর মধ্যে ৫০টি ঝুঁকিপূর্ণ বলে জানা গেছে। তবে নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে এসব কেন্দ্রে পুলিশ ও র‌্যাবের পাশাপাশি তিন প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সিলেট ৫ ব্যাটালিয়নের পরিচালক মো. আব্দুর রাজ্জাক তফাদার।

তিনি জানান, গত শনিবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে সিলেটের নির্বাচনী এলাকায় বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে। নির্বাচনের পর দিন পর্যন্ত বিজিবি সদস্যরা মাঠে কাজ করবে। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতেই এমন উদ্যোগ নেয়া হয়েছে বলে জানান বিজিবি’র ওই কর্মকর্তা।

নির্বাচনী এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বিভিন্ন বাহিনীর সদস্যদের ব্যাপক উপস্থিতি রয়েছে। গ্রামে গ্রামে বইছে নির্বাচনী আমেজ। সদর উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় পুলিশ, র‌্যাবের পাশাপাশি বিজিবি সদস্যরা টহল দিচ্ছে। নির্বাচনী এলাকায় প্রায় প্রতিটি রাস্তায় কিছু সময় পরপর চলাচল করছিল পুলিশ, র‌্যাব ও বিজিবির টহল দলকে বহনকারী গাড়ি। এলাকার লোকজনও এমন প্রস্তুতি দেখে অবাক সন্তুষ্ট।

খাদিমনগর এলাকার ভোটার আব্দুল গণী জানান, ‘ আইন-শৃঙ্খালা সদস্যদের উপস্থিত ভালো দেখা যাচ্ছে। এভাবে সব সময় থাকলে নির্বাচনে কোন ঝামেলা হওয়ার কথা নয়।’

এদিকে, সিলেট জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. আজিজুল ইসলাম বলেন, ‘ভোটাররা যাতে পছন্দমতো ও ভয়ভীতির ঊর্ধ্বে থেকে ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারেন, সেই ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘আশা করছি, নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু হবে।’ নিরাপত্তার বাড়াবাড়িতে ভোটারদের আতঙ্কিত না হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন ওই নির্বাচন কর্মকর্তা।