রাজনগরে একই ব্যক্তির বিরুদ্ধে দুই পদে সরকারি বেতন গ্রহণের অভিযোগ রাজনগরে একই ব্যক্তির বিরুদ্ধে দুই পদে সরকারি বেতন গ্রহণের অভিযোগ – এইবেলা
  1. admin@eibela.net : admin :
শনিবার, ০২ জুলাই ২০২২, ০৪:২১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
কুলাউড়ায় বন্যার্তদের মধ্যে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ শেখ হাসিনার উন্নয়নের ছোঁয়া প্রতিটি ঘরে ঘরে স্পর্শ করেছে..এমপি হেলাল দুর্যোগেও পুলিশ মানুষের পাশে থাকবে -ডিআইজি মফিজ উদ্দিন পিপিএম নাগেশ্বরীর কালিগঞ্জ এইচ এ উচ্চ বিদ্যালয়ে ম্যানেজিং কমিটি গঠনে অনিয়মের অভিযোগ আত্রাইয়ে ঐতিহ্যবাহী জগন্নাথ দেবের রথযাত্রা অনুষ্ঠিত কমলগঞ্জে দরিদ্র জারিয়া বেগমের ভাগ্যে আজও কোন ভাতা জুটেনি কমলগঞ্জে শ্রী শ্রী জগন্নাথদেবের রথযাত্রা উৎসব শুরু বড়লেখায় সীমাহীন দুর্ভোগে বানভাসিরা-ত্রাণ বিতরণ অব্যাহত কুলাউড়াসহ হাকালুকি তীরের ৩ উপজেলাকে দুর্গত এলাকা ঘোষণা করুন- এমএম শাহীন বড়লেখায় সূচনা উপকারভোগীদের অনুশীলন সমূহ প্রদর্শণ ও মতবিনিময়

রাজনগরে একই ব্যক্তির বিরুদ্ধে দুই পদে সরকারি বেতন গ্রহণের অভিযোগ

  • মঙ্গলবার, ১১ জানুয়ারী, ২০২২

 রাজনগর (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি ::

একই ব্যক্তি দুই পদে নিচ্ছেন সরকারী সুযোগ সুবিধা। এমপিও ভূক্ত শিক্ষক হয়েও ইউপি সদস্য পদে সরকারী সুযোগ সুবিধা ভোগ করছেন অবৈধভাবে। এ অভিযোগ রাজনগর উপজেলার সদর ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের সদস্য দেলওয়ার হোসেন বাবলুর বিরুদ্ধে। এনিয়ে জেলা প্রশাসক বরাবর লিখিত আবেদন করা হয়েছে।
বিষয়টি নিয়ে ১১ জানুয়ারি মঙ্গলবার বিকাল সাড়ে তিনটার সময় রাজনগর প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেছেন এ ওয়ার্ডেও পরাজিত তিন সদস্য প্রার্থী। এতে তিনজনের স্বাক্ষরিত লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন মো. মনির হোসেন।

লিখিত অভিযোগ ও বক্তব্য থেকে জানা যায়, রাজনগর উপজেলার সদর ইউনিয়নের ৭ নংওয়ার্ডেও সদস্য দেলওয়ার হোসেন বাবলু রাজনগর উপজেলা সদরের রাজনগর আইডিয়াল হাই স্কুলের এমপিও ভূক্ত অফিস সরকারী। দীর্ঘদিন থেকে এ পদের বিপরীতে সরকারী বরাদ্দের ১১ হাজার ৬৮৮টাকা হারে বেতন উত্তোলন করছেন। তার এমপিও ইনডেক্স নং- s1023433|  এছাড়াও বিদ্যালয়ের ফান্ড থেকে প্রতি মাসে ৭ হাজার টাকা করে বেতন নিচ্ছেন। ২০১৬ সালের ইউনিয়ন নির্বাচনে অংশ নিয়ে তিনি ৭নং ওয়ার্ডের সদস্য নির্বাচিত হন। কিন্তু ইউনিয়ন পরিষদ আইন লঙ্ঘন করে নিয়ম বহির্ভূতভাবে তিনি এমপিও ভূক্তির সরকারী বরাদ্দ এবং ইউপি সদস্য হিসেবে বরাদ্দকৃত রাজস্ব খাতের টাকাও গ্রহণ করেছেন। এদিকে এবারের ৪র্থ ধাপের নির্বাচনেও তিনি অংশ নিয়ে বিজয়ী হয়ে সরকারী বরাদ্দ আত্মসাতের পায়তারা করছেন। ইউপি সদস্য দেলওয়ার হোসেন বাবলুর সদস্যপদ বাতিল ও আত্মসাৎকৃত সরকারী বরাদ্দ সরকারী কোষাগারে জমা দেয়া এবং তার শাস্তির দাবীতে মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসক বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন পরাজিত প্রার্থী মো. মনির হোসেন, মো. বদরুল ইসলাম ও হেলাল আহমদ।

এ ব্যপারে ইউপি সদস্য দেলওয়ার হোসেন বাবলু বলেন, সাধারণ মানুষ আমার উপর আস্থা রেখেছেন বলে আমি ২য় বার নির্বাচিত হয়েছি। আমি সরকারী বিধি অনুযায়ী পরিষদের সম্মানি গ্রহন করেছি। মানুষ তাদের ওপর আস্থা রাখেনি। পরাজয়ের বেদনায় আইন না জেনে আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ দিয়েছে।#

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৫ - ২০২০
Theme Customized By BreakingNews