জুন ৩০, ২০১৬
Home » অর্থ ও বাণিজ্য » শেষ কার্য দিবসে কমলগঞ্জে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোয় গ্রাহকদের উপচে পড়া ভীড়

শেষ কার্য দিবসে কমলগঞ্জে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোয় গ্রাহকদের উপচে পড়া ভীড়

এইবেলা, কমলগঞ্জ ৩০ জুলাই :: পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে শুক্রবার ১ জুলাই থেকে ১০ জুলাই ঈদের সরকারী ছুটি চলবে। দীর্ঘ টানা ছুটি উপলক্ষে বৃহস্পতিবার ৩০ জুন বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর শেষ কার্য দিবসে কমলগঞ্জের সবগুলো বাণিজ্যিক ব্যাংক শাখায় ছিল গ্রাহকদের উপচে পড়া ভীড়। গ্রাহকেদর মাঝে আগত বৈদেশিক মুদ্রা উত্তোলনকারী নারী গ্রাকদের সংখ্যাই বেশী।

মূলত ১ জুলাই শুক্রবার থেকে সরকারী ছুটি শুরু হচ্ছে। বৃহস্পতিবার ছিল সরকারী অফিস ও ব্যাংকগুলোর শেষ কার্য দিবস। বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে নয়টা থেকে কমলগঞ্জের সবগুলো বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলায় গ্রাহাকদের ভিড় জমে। ক্রমে গ্রাহক সংখ্যা বাড়তে থাকলেও সকাল থেকে বিদ্যুৎ বিভ্রাট ও জেলার আঞ্চলিক শাখা থেকে উপজেলার শাখাগুলোয় চাহিদামত টাকা সরবরাহে কিছু বিলম্ব হলে গ্রাহকরা বেশ কিছু সময় অপেক্ষায় থাকায় ক্রমে ভীড় আরও বেড়ে যায়। ফলে গ্রাহককে ক্ষোভ প্রকাশ করতেও দেখা যায়।

Exif_JPEG_420

Exif_JPEG_420

সোনালী ব্যাংক শমশেরনগর শাখা ব্যবস্থাপক আনোয়ার শুকরানা, পূবালী ব্যাংক শমশেরনগর শাখা ব্যবস্থাপক আব্দুল হামিদ জানান, আসলে পুরো ৯ দিন পর আবার ব্যাংক খুলবে। তাই বৃহস্পতিবার নিজ নিজ হিসাব থেকে টাকা উত্তোলনে গ্রাহকরা ব্যাংকে এসেছেন। গ্রাহকদের চাহিদার তুলনায় শাখায় সে পরিমাণ টাকা না থাকায় জেলার আঞ্চলিক শাখা থেকে চাহিদামত টাকা আসার অপেক্ষায় থাকতে হয়েছে। আর ঈদের সময় বিভিন্ন মানি চ্যাঞ্জার কোম্পানীর মাধ্যমে আসা বৈদেশিক টাকার ক্ষেত্রে ভাল করে যাচাই করে পিন কোডের সাথে মিল রেখে টাকা দিতে হয়। এখানে কিছুটা বেশী সময় লেগে যায়।

সোনালী ব্যাংক কমলগঞ্জ শাখা ব্যবস্থাপক সঞ্জয় কুমার দে ও জনতা ব্যাংক ভানুগাছ শাখা ব্যবস্থাপক মো: সালাহউদ্দীন শেষ কার্য দিবসে ব্যাংক শাখায় গ্রাহকদের ভিড় ভাড়ার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, তাদের শাখায় সরকারী বেতন ভাতা, বিধবা ভাতা, বয়স্ক ভাতা, মুক্তিযোদ্ধা ভাতা প্রদান করতে হয় বলে ভিড় একটু বেশী। তবে বৈদেশিক মুদ্রারও কিছুটা চাপ রয়েছে বলে শাখা ব্যবস্থাপকদ্বয় জানান।

গত এক সপ্তাহে কমলগঞ্জের সবগুলো বাণিজ্যিক ব্যাংক শাখায় কমপক্ষে ১৫ কোটি টাকার মত লেদ দেন হয়েছে বলে ব্যাংক শাখাগুলোর সূত্রে জানা যায়। এর মাঝে সোনালী ব্যাংক শমশেরনগর শাখা, কমলগঞ্জ শাখা ও পূবালী ব্যাংক শমশেরনগর শাখায় এর পরিমাণ বেশী হবে।#

রিপোর্ট- প্রনীত রঞ্জন দেবনাথ