- জাতীয়, ব্রেকিং নিউজ, মৌলভীবাজার, স্থানীয়, স্লাইডার

মনু নদীর প্রতিরক্ষা বাঁধে ২০টি পয়েন্টে মেরামত কাজে চলছে- ভাগ বাটোয়ারা আর নিম্নমানের কাজের অভিযোগ স্থানীয় বাসিন্দাদের

এইবেলা, কুলাউড়া , ০৫ জানুয়ারি ::

মৌলভীবাজারে মনু নদীর প্রতিরক্ষা বাঁধে ভাঙন ও ঝুঁকিপূর্ণ কুলাউড়া ও রাজনগর উপজেলা অংশে ২০টি পয়েন্টে ১ কোটি ১৩ লাখ টাকা ব্যয়ে মেরামত কাজ চলছে। এরমধ্যে কুলাউড়া উপজেলায় ১১ টি এবং রাজনগর উপজেলায় ৯টি পয়েন্টে এই কাজ চলছে। মেরামত কাজে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ স্থানীয় বাসিন্দাদের। আর পাউবো বলছে স্বচ্ছতা নিশ্চিত করতে তারা প্রতিটি পয়েন্টে কাজের বিস্তারিত বর্ননা সংবলিত সাইনবোর্ড টানিয়ে দেবে। এদিকে এলাকাবাসীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে বুধবার ০৩ জানুয়ারি স্থানীয় সংসদ সদস্য আব্দুল মতিন সরেজমিন বাঁধ মেরামত কাজ পরিদর্শণ করেন।

পানি উন্নয়ন বোর্ড সুত্রে জানা যায়, মনু নদীর কুলাউড়া উপজেলা অংশে বেলেরতল আলিনগর, রাজাপুর, কলিকোনা, আশ্রয়গ্রাম, জালালপুর, চাতলাপুর, তেলিবিল, মাতাবপুর, মিয়ারপাড়া, সন্দ্রাবাজ, বালিয়া এবং রাজনগর উপজেলায় চাটিকোনগাঁও, মেলাগড়, কাজিরচক, ভোলানগর, খাসপ্রেমনগর, প্রেমনগর, উজির পুর, একামধু এই ২০টি পয়েন্টে মেরামত কাজ চলছে। এতে ব্যয় ধরা হয়েছে ১ কোটি ১৩ লাখ টাকা।
পৃথিমপাশা ইউনিয়নের বেলেরতল আলিনগর এলাকায় যে মেরামত কাজ চলছে, তাতে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ করেন স্থানীয় বাসিন্দারা। ছাত্রনেতা ফয়জুল হক, ইউপি মেম্বার মনাফ মিয়া জানান, প্রতিরক্ষা বাঁধে কি ধরনের কাজ চলছে, কত বরাদ্ধ, কাজ বাস্তবায়নের প্রক্রিয়া কোন কিছু সম্পর্কে এলাকার মানুষ কিছু জানেনা। ঠিকাদারের লোকজন নামকাওয়াস্তে নিম্নমানের বাঁশ আর চাটাই দিয়ে কাজ শেষ করতে চাইছে। এভাবে কাজ সম্পাদন করলে সামান্য পানির ¯্রােতে সবকিছু ছাড়িয়ে নিয়ে যাবে। তারা বিষয়টি স্থানীয় সংসদ সদস্য মো. আব্দুল মতিনকে অবহিত করলে গত ০৩ জানুয়ারি তিনি সরেজমিন মেরামত কাজ পরিদর্শণ করেন।

পানি উন্নয়ন বোর্ড সুত্রে আরও জানা যায়, এবার মনু নদীর প্রতিরক্ষা বাঁধ মেরামত কাজ শুধু পানি উন্নয়ন বোর্ডই বাস্তবায়ন করছে না। এই কাজ বাস্তবায়নে সম্পৃক্ত করা হয়েছে ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এবং মেম্বারকে।

এদিকে পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী রনেন্দ্র শংকর চক্রবর্তী জানান, অনিয়মের অভিযোগ সঠিক নয়। বিষয়টি হলো এটা অস্থায়ী কাজ, ২০টি পয়েন্টে মেরামত কাজে বরাদ্ধ একদম কম আর চাহিদা ব্যাপক। এই স্বল্প বরাদ্ধ নিয়ে চেষ্টা করছি কাজ সম্পাদন করার। স্বচ্ছতার জন্য প্রতিটি পয়েন্টে কাজের বিবরণসহ সাইনবোর্ড লাগানোর নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে সাইনবোর্ড প্রস্তুত করা হয়েছে।

এছাড়া মনুসহ ৩টি নদীর প্রতিরক্ষা বাঁধে স্থায়ী কাজ করানোর জন্য প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। নদী ড্রেজিংসহ প্রতরিক্ষা বাঁধে কাজ করা হবে।#

About eibeleamialabula

Read All Posts By eibeleamialabula

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *